×

প্রকাশিত ভোটের নির্ঘণ্ট, ত্রিপুরা বিধানসভায় ভাঙনের ইঙ্গিত, একাধিক থানায় বদল ওসি

 
ভোট

আগরতলা: চলতি বছর একাধিক রাজ্যে বিধাসভা ভোট৷ বছরের শুরু থেকেই ভোট ঘিরে রাজনৈতিক দলগুলির তৎপরতা তুঙ্গে৷ আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি ভোট হবে ত্রিপুরায়। পাশাপাশি আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি নাগাল্যান্ড এবং মেঘালয়ে হবে বিধানসভা নির্বাচন। তিন রাজ্যের ভোটের ফলপ্রকাশ হবে একই দিনে, আগামী ২ মার্চ। ভোটের আগে একাধিক রাজনৈতিক ঘটনায় সরগরম ত্রিপুরা৷

আরও পড়ুন- তিন রাজ্যের ভোটের দিনক্ষণ প্রকাশ, কোথায় কবে নির্বাচন

 ২০২৩-এর বিধানসভা ভোটের আগে ত্রিপুরা মন্ত্রিসভায় ভাঙনের ইঙ্গিত। তিপ্রামথা দলে যোগ দিতে চলেছেন ত্রিপুরার মৎস্য ও সমবায় দফতরের মন্ত্রী প্রেম কুমার রিয়াং। তিপ্রামথা দলের প্রধান প্রদ্যুত কিশোর মানিক্য দেববর্মনকে চিঠি লিখে আলোচনায় বসার জন্য স্থান ও সময় নির্ধারণ করার অনুরোধ জানিয়েছেন রিয়াং। তিনি বর্তমানে আইপিএফটি দলের সভাপতি৷ তাঁর দল বদলের ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৈরি হয়েছে চাপা উত্তেজনা৷ 

এদিকে, বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে পুরাতন আগরতলা ৫ খয়েরপুর বিধানসভা কেন্দ্রে গিয়ে রীতিমতো বোমা ফাটালেন বিজেপির বিক্ষুব্ধ নেতা কৃষ্ণকমল লস্কর। বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে নাম না করে পুরাতন আগরতলা খয়েরপুরের বিধায়ক তথা ত্রিপুরা বিধানসভার অধ্যক্ষ রতন চক্রবর্তীর কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি। তাঁর অভিযোগ, গত পাঁচ বছরে জনসাধারণের জন্য আসা বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের কোটি কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে এই কেন্দ্রে৷ নেপকো, সি পি ডব্লিউ, শিল্পনগরীর বিভিন্ন ফার্ম, সরকারি প্রকল্পের বিভিন্ন প্রজেক্টের টাকা কমিশন আদায়ের মাধ্যমে এবং অন্যান্য উপায়ে লুটপাট হয়েছে। তাঁর দাবি,  সিপিএম থেকে আসা নতুন সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে এইসব অপকর্ম করেছে বিধায়ক৷  আর যাঁরা এইসব অপকর্মের প্রতিবাদ করেছে, তাঁদের বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে মামলা করা হয়েছে। বিজেপির মন্ডল থেকে শুরু করে দলের বিভিন্ন সংগঠন থেকে ষড়যন্ত্র করে প্রতিবাদীদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। 


তিনি আরও অভিযোগ করেন,  বাম আমলে খুন হওয়া শহিদ পরিবারগুলির পাশে দাঁড়াননি রতন চক্রবর্তী। কোনও রকম সাহায্য করা হয়নি তাঁদের৷ কেননা ওই সমস্ত মাফিয়াদের সঙ্গেই রতন পরম আত্মীয়তা গড়ে তুলেছেন, দাবি তাঁর৷ 


এদিকে, ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণার প্রাক মুহুর্তে পাহাড় ঘেরা ছোট্ট রাজ্যের রাজধানী আগরতলার বেশ কিছু থানার ওসিদের রদবদল করা হয়েছে। আগরতলা পশ্চিম থানার ওসি জয়ন্ত কুমার দে’কে দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলা সাব্রুমে বদলি করা হয়েছে। অন্যদিকে, দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলা সাব্রুম থেকে সমরেশ দাসকে পাঠানো হয়েছে পশ্চিম আগরতলা থানায়। বদলি করা হয়েছে আগরতলা পূর্ব থানার ওসি রানা চট্টোপাধ্যায়, আগরতলা নিউ ক্যাপিটাল কমপ্লেক্স থানার ওসি সুবীর মালাকার, আগরতলা অরুন্ধতীনগর থানার ওসি সঞ্জীব লস্করকে। ত্রিপুরা  বিধানসভা নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়, ত্রিপুরার মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারেন, সে জন্য ত্রিপুরার আটটি জেলায় শুরু হয়েছে পুলিশের ফ্ল্যাগ মার্চ।
 

From around the web

Education

Headlines