×

নতুন বছরে আরও ভয়ঙ্কর করোনা! ‘ক্রাকেন ভ্যারিয়েন্ট’-এর দাপটে ফের কি লকডাউন? 

 
করোনা চিন

নয়াদিল্লি: ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে চিনে প্রথম হদিস মিলেছিল কোভিড-১৯ এর৷ তার পর থেকে গত দু’ বছর ধরে সংক্রমণের সঙ্গে ক্রমাগত লড়াই করে চলেছে গোটা দুনিয়া। একুশে পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হয়ছিল৷ কিন্তু নতুন বছরের শুরুতে ফের চোখ রাঙাতে শুরু করেছে করোনা ভাইরাস৷ চিনে লাগামছাড়া সংক্রমণ আতঙ্ক ছড়িয়েছে৷ আমেরিকার পরিস্থিতিও ভয়ঙ্কর। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের হার৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার সাব ভ্যারিয়েন্ট বা উপরূপ এক্সবিবি.১.৫ (XBB.1.5)-এর কারণেই দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে এই মারণ রোগ৷ আরও ২৮টি দেশে মিলেছে আমেরিকার ‘ডমিনেন্ট’ ভ্যারিয়েন্টের খোঁজ৷ অতি সংক্রামক এই ভ্যারিয়েন্টকে ‘ক্রাকেন ভ্যারিয়েন্ট’ (kraken variant) নামে অভিহিত করেছেন বিশেষজ্ঞরা। কতটা ভয়ঙ্কর এই ভ্যারিয়েন্ট? 

আরও পড়ুন- বিরাট কম্পন অনুভূত ভারতের একাংশে, কাঁপল আফগানিস্তান

২০২২ সালেই প্রথম খোঁজ মিলেছিল করোনার এই প্রজাতির। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাচ্ছে,  এক্সবিবি ১.৫ হল ওমিক্রন এক্সবিবি-র সাবভ্যারিয়েন্টের একটি রূপ। বিএ২.৭৫ এবং বিএ২.১০ ভ্যারিয়েন্ট মিশে গিয়ে এই নতুন সাব ভ্যারিয়েন্ট তৈরি হয়েছে। এক্সবিবি সাবভ্যারিয়েন্ট মূলত ভারত ও সিঙ্গাপুরে বিস্তার লাভ করলেও, এক্সবিবি১.৫-র দাপট সবথেকে বেশি দেখা গিয়েছে মার্কিন মুলুকে। গত অক্টোবর মাসেই এই সাবভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল হু৷ 

কতটা দ্রুতগতিতে ছড়াচ্ছে এই উপরূপের সংক্রমণ?
মার্কিন সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের তথ্য মোতাবেক, ডিসেম্বরের শুরুতে আমেরিকায় মোট আক্রান্তের মধ্যে মাত্র ১ শতাংশের জন্য দায়ী ছিল এই সাবভ্যারিয়েন্ট৷ মাসের শেষে এটিই পরিণত হয় ডমিনেন্ট ভ্যারিয়েন্টে৷ আমেরিকায় মোট সংক্রমণের ৪১ শতাংশই এক্সবিবি১.৫ ভ্যারিয়েন্টের ফল। আমেরিকার উত্তর-পূর্ব অংশে ৭০ শতাংশ আক্রান্তই এই ভ্যারিয়েন্টের শিকার।

তবে এক্সবিবি১.৫ ভ্য়ারিয়েন্টই করোনার সবচেয়ে বেশি সংক্রামক রূপ কিনা, তা এখনও নিশ্চত নয়৷ এখনও পর্যন্ত ২৯টি দেশে এই ভ্য়ারিয়েন্টের খোঁজ মিলেছে। শীতকালে এই সংক্রমণের হার আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ 

গবেষকরা জানাচ্ছেন, এই সাবভ্যারিয়েন্ট অত্যন্ত শক্তিশালী। দ্রুত সংক্রমণ ছড়াতে পারে। করোনার টিকা নেওয়া থাকলেও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ফাঁকি দিতে সক্ষম এই ভ্যারিয়েন্ট৷ ফলে যাঁদের টিকা নেওয়া আছে এবং যারা আগে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তারাও নতুন করে সংক্রমিত হতে পারেন৷ এই সংক্রমণ রুখতে নতুন করে কি লকডাউনের পথে হাঁটবে বিভিন্ন দেশের সরকার? সেটাই এখন পড় প্রশ্ন৷ 


 

From around the web

Education

Headlines