×

খাদ্যাভাবে ভুখা দেশ! সেখানই কেউ নামী ফ্যাশন ডিজাইনার, কেউ রাজনীতিক, পাকিস্তানে ধনী হিন্দুদের আখ্যান

 
পাকিস্তান ধনী

কলকাতা: ১৯৪৭ সালের ১৪ অগাস্ট৷ ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে মুক্ত হয়ে জন্ম হয় পাকিস্তানের৷ ধর্মের ভিত্তিতে দ্বিবিভক্ত হয় ভারত৷  জন্মলগ্ন থেকেই পাকিস্তান ঘোষিত মুসলিম রাষ্ট্র৷ দেশ ভাগের সময় পাকিস্তান ছেড়ে ভারতে চলে এসেছিলেন বহু হিন্দু৷ তবে থেকে গিয়েছিলেন অনেকেই৷ তবে সে দেশে হিন্দুরা সংখ্যালঘু৷ তাঁরা  দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক। তাঁরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রকম সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে ব্যতিক্রমও আছে৷ পাকিস্তানে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজনের সুষ্ঠু জীবনযাপন বিরল ঘটনা নয়। শুধু তাই নয়, পাকিস্তানে ধনীতম ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছে বেশ কিছু হিন্দু নাম। মুসলিম রাষ্ট্রের থেকেই তাঁরা নিজেদের জীবনে সফল।

আরও পড়ুন- ঘুড়ে যেতে পারে যুদ্ধের মোড়! বিশ্বের কোন কোন দেশের হাতে রয়েছে শক্তিশালী ট্যাঙ্ক?


বর্তমানে প্রবল খাদ্য সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান। দেশে মহার্ঘ অন্যতম প্রধান খাদ্য উপাদান গম। খাবারের জন্য দেশজুড়ে হাহাকার৷ দানের খাবার সংগ্রহ করতে সাধারণ মানুষের মধ্যে হুড়োহুড়ি৷ একে পরিস্থিতিতে সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে কঠিন খাদ্যসঙ্কট বলে মনে করছেন কেউ কেউ।খাদ্য সঙ্কটের জেরেই আজ আন্তর্জাতিক খবরের শিরোনামে পাকিস্তান৷ দেশজুড়ে যখন ডামাডোল পরিস্থিতি, তখন চিনে নেওয়া যাক সে দেশের কয়েক জন ধনী হিন্দু ব্যক্তিত্বকে৷ দেখে নওয়া যাক তাঁর সম্পত্তি, রোজগারের খুঁটিনাটি৷ 

পাকিস্তানের ধনী হিন্দুদের মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য নাম হল দীপক পেরওয়ানি। পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার। পাশাপাশি অভিনয়ও করেন। পেশাগত ক্ষেত্রে সাফল্যের হাত ধরে ঝুলিতে এসেছে একাধিক পুরস্কার। ১৯৭৩ সালে পাকিস্তানের মীরপুর খাসে জন্ম হিন্দু সিন্ধি সম্প্রদায়ের দীপক পেরওয়ানির৷ পাকিস্তানেই বেড়ে ওঠা তাঁর। ভারতীয় মুদ্রায় দীপকের সম্পত্তির পরিমাণ ১১৩ কোটি টাকা৷ 


পাকিস্তানের আরও এক উল্লেখযোগ্য ধনী ব্যক্তিত্ব হলেন রীতা ঈশ্বর। রাজনৈতিক মহলে তাঁর বেশ আধিপত্য। ২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সদস্য ছিলেন রীতা।  ১৯৮১ সালের ১৬ মার্চ পাকিস্তানের করাচি শহরে জন্ম তাঁর। ভারতীয় মুদ্রায় রীতার সম্পত্তির পরিমাণ ৩৭ কোটি টাকা। পাকিস্তান মুসলিম লিগের সঙ্গে যুক্ত রীতা মেয়েদের জন্য সংরক্ষিত আসন থেকে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন৷ 

পাকিস্তানে ধনী হিন্দুদের তালিকায় রয়েছে আরও একটি চর্চিত নাম৷ তিনি নবীন পেরওয়ানি। জনপ্রিয় ফ্যাশন ডিজাইনার দীপক পেরওয়ানির তুতো ভাই। তিনি আবার ক্রীড়া জগতে পরিচিত মুখ। তিনি স্নুকার খেলেন৷ ২০০৬ সালে জর্ডনে ইন্টারন্যাশানাল বিলিয়ার্ডস এবং স্কুকার ফেডারেশন আয়োজিত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনালেও পৌঁছেছিলেন নবীন৷ ভারতীয় মুদ্রায় তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ৭২ কোটি টাকার বেশি।


পাকিস্তানের বিখ্যাত এবং ধনী হিন্দুদের কথা বলতে গেলে খাটুমল জীবনের কথা বলতেই হয়৷। তিনি পাকিস্তানের প্রথম সারির রাজনীতিবিদ৷ পাকিস্তান পিপল্‌স পার্টির এই নেতা পার্লামেন্টের সদস্যও ছিলেন৷  ১৯৮৮ সালে সিন্ধ বিধানসভা থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন৷ তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪০ কোটি টাকা।


পাকিস্তানের আর এক বিখ্যাত এবং দুঁদে হিন্দু রাজনীতিবিদের নাম রানাচন্দ্র সিং।  ২০০৯ সালে তিনি প্রয়াত হন৷ পাকিস্তান পিপল্স পার্টির প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে রানাচন্দ্র ছিলেন অন্যতম৷  ১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৯৯ সালের মধ্যে ৭ বার পিপিপি-র টিকিটে পাকিস্তান ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এই হিন্দু রাজনীতিবিদ। হিন্দু নেতা হিসাবে পাকিস্তানে শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন তিনি। তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ছিল প্রায় ৩৭ কোটি টাকা।


From around the web

Education

Headlines