Aajbikel

রেশন দুর্নীতিকে কেন্দ্র করে ফের 'ধামাকা' হবে রাজ্যে? তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়াল বাকিবুর এপিসোড?

 | 
Ration Scam রেশন দুর্নীতি রেশন কেলেঙ্কারি

কলকাতা: ইডির জালে ব্যবসায়ী বাকিবুর রহমান। রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে টানা দু'দিনের বেশি সময় ধরে জেরার পর বর্তমানে ইডি কব্জায় বাকিবুর। সূত্রের খবর রাজ্যের এক মন্ত্রীর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ তিনি।

রেশন দুর্নীতির সঙ্গে বাকিবুর সরাসরি যুক্ত এমনটাই জানা যাচ্ছে ইডি সূত্রে। সেই সংক্রান্ত বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি তাঁর ফ্ল্যাট থেকে পাওয়া গিয়েছে বলে খবর। তাঁর বেশ কিছু সম্পত্তিরও হদিশ পাওয়া গিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার বিস্ফোরক দাবি করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেছেন, রাজ্যের প্রাক্তন ও বর্তমান খাদ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে বাকিবুরের।

ঘটনা হল সপ্তাহ খানেক আগেই রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছিল ইডি। এরপরই রাজ্যের বারোটি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালায় ইডি। তখনই উঠে আসে বাকিবুর রহমানের নাম। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, দুর্নীতির বিপুল পরিমাণ কালো টাকা রাইস মিল ব্যবসায় বিনিয়োগ করে সেটিকে সাদা করা হয়েছে। তবে কি রাজ্যের এক মন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ এই বাকিবুরকে  কার্যত ঘুঁটি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে? এই প্রশ্ন স্বাভাবিকভাবেই উঠছে।

ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, রাজ্যের বাইরেও বাকিবুরের ব্যবসা বিস্তৃত। এমনকী বিদেশেও তাঁর ব্যবসা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ১৬ টি কোম্পানির মালিক তিনি। রাইস মিল, ফ্লাওয়ার মিল, ট্যাঙ্কার, হোটেল ব্যবসার পাশাপাশি লজিস্টিক ব্যবসাও বাকিবুরের রয়েছে বলে খবর। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, বাকিবুরের বিভিন্ন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য বলছে সেখানে কোটি কোটি টাকার বেহিসেবি লেনদেন হয়েছে।

কয়লা পাচার, গরু পাচার, শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি, পুর নিয়োগ দুর্নীতি, আবাস যোজনা দুর্নীতি পর এবার সামনে এল রেশন দুর্নীতি। তাই প্রশ্ন উঠছে, আর কোন কোন ক্ষেত্র বাকি থাকল, যেখানে দুর্নীতি নেই? বিরোধীদের কটাক্ষ, পশ্চিমবঙ্গ দেশের মধ্যে দুর্নীতির 'ভরকেন্দ্র' হয়ে উঠেছে। তাই রেশন দুর্নীতির তদন্ত যত এগোবে রাজ্য জুড়ে নতুন করে কী 'ধামাকা' শুরু হবে? এই ঘটনায় সত্যিই কী বহু প্রভাবশালীর যোগ রয়েছে? যে নাম সামনে আসলে রাজ্য রাজনীতিতে নতুন করে ঝড় বয়ে যাবে? বাকিবুর এপিসোড সামনে আসার পরেই এই জল্পনা শুরু হয়েছে।

যেভাবে রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী সরাসরি তৃণমূলের প্রাক্তন এবং বর্তমান খাদ্যমন্ত্রীর দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন, তাতে নিঃসন্দেহে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়তে শুরু করেছে। এবার কী তবে এই ইস্যুতেও বিরোধীরা তৃণমূলকে আক্রমণ শানাতে শুরু করবে? এমনিতেই বিভিন্ন দুর্নীতির ঘটনায় তৃণমূলের একাধিক নেতামন্ত্রী গ্রেফতার হয়েছেন।‌ এছাড়া 'লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস' মামলায় তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তাঁর বাবা-মাকেও তলব করেছে ইডি। ইতিমধ্যেই নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রথম বার জেরার মুখোমুখি হয়েছেন অভিষেকের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই দাবি করেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত সংস্থা যদি কোনও দুর্নীতির প্রমাণ দিতে পারে, তাহলে তিনি নিজেই চরম সিদ্ধান্ত নেবেন৷ তবে তাতেও দমতে নারাজ বিরোধী শিবির৷ একের পর এক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিরোধীরা ধারাবাহিকভাবে তৃণমূলকে নিশানা করে চলেছে। এই আবহের মধ্যে সামনে এল রেশন দুর্নীতির ঘটনা। যা নিঃসন্দেহে আরও অস্বস্তিতে ফেলল তৃণমূলকে।

Around The Web

Trending News

You May like