Aajbikel

রাম মন্দিরে নিশ্চিত ভাবে যাবেন কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব!

 | 
কংগ্রেস

নিজস্ব প্রতিনিধি:  ২২ জানুয়ারি রাম মন্দির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কংগ্রেস যোগ দেবে কিনা তা নিয়ে বহুদিন ধরেই নানা জল্পনা চলছে। কিছুদিন আগেই কংগ্রেস নেতৃত্ব দাবি করেছেন ২২ জানুয়ারি রাম মন্দির উদ্বোধনের নামে বিজেপি সেটিকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পরিণত করেছে। এই কারণ দেখিয়েই ২২ জানুয়ারি রাম মন্দির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে না যাওয়ার কথা ঘোষণা করেছে কংগ্রেস। ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রার দ্বিতীয় দিনে কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী মঙ্গলবার ফের এ কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, কংগ্রেস কি তবে রাম মন্দিরকে বয়কট করতে চলেছে? এক কথায় এর উত্তর হচ্ছে না।

দু'দিন আগে বা পরে, কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব অবশ্যই যাবেন রাম মন্দিরে। এমনটাই সূত্রের খবর। এমনকী উত্তরপ্রদেশ দিয়ে যখন  ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা যাবে তখন রাহুল গান্ধী রাম মন্দিরে গেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। ইতিমধ্যেই মকর সংক্রান্তির দিন অযোধ্যায় সরযূ নদীতে স্নান করে রামলালা দর্শন করে পুজো দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। রাজনৈতিক মহল মনে করছে লোকসভা নির্বাচনে হিন্দু ভোট হারানোর আশঙ্কা থেকেই উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অজয় রাইয়ের নেতৃত্বে একাধিক কংগ্রেস নেতা সরযূ নদীতে স্নান করে রামলালা দর্শন করে পুজো দিয়েছেন। কিন্তু কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব রাম মন্দির উদ্বোধনের পরে দর্শনে গেলে তা যে খবরের শিরোনামে উঠবে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। 

গোটা বিষয়টি নিয়ে কংগ্রেসের ব্যাখ্যা, সুপ্রিম কোর্ট যখন অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে রাম মন্দির নির্মাণের পক্ষে রায়  দিয়েছিল, তখন সেই রায়কে স্বাগত জানানো হয়েছিল কংগ্রেসের তরফে। অর্থাৎ সর্বোচ্চ আদালত যে নির্দেশ দিয়েছিল প্রত্যাশিতভাবেই তার বিরোধিতা করেনি কংগ্রেস। সেই সূত্রে কংগ্রেসের দাবি বিজেপি ইচ্ছা করে প্রচার করছে কংগ্রেস নাকি রাম মন্দিরের বিরোধী। আর  বিজেপির সেই ভূমিকার তীব্র নিন্দা করা হচ্ছে কংগ্রেসের তরফ থেকে। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস হাইকমান্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে উদ্বোধনের দিন কংগ্রেসের কেউ যাবেন না। কংগ্রেসের দাবি, তারা রাম মন্দিরের বিপক্ষে নয়। তারা শুধুমাত্র মন্দির নিয়ে রাজনীতির বিপক্ষে। যেভাবে মন্দির রাজনীতির বিরোধিতা করছেন একাধিক শংকরাচার্য। কংগ্রেসের দাবি তারা ধর্মনিরপেক্ষ দল।

প্রত্যেকটি ধর্মের প্রতি তাদের সমান শ্রদ্ধা রয়েছে। কংগ্রেস নেতারা সারা বছর ধরে মন্দির, মসজিদ, গির্জা-সহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে যান এবং উৎসবে অংশ গ্রহণ করেন। কংগ্রেসের আরও দাবি বিজেপির তুলনায় তারা অনেক বেশি হিন্দু ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। বিজেপি এবং আরএসএস ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে, এমন অভিযোগ ফের করা হচ্ছে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। সবমিলিয়ে পরিস্থিতি বিচার করে ২২ জানুয়ারি রাম মন্দিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির থাকছে না কংগ্রেস। কিন্তু পরে কোনও একটি দিনে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব অযোধ্যায় নিশ্চিত ভাবে যাচ্ছেন বলেই খবর।

Around The Web

Trending News

You May like