×

কেন্দ্র নির্দেশ দিলেই ফিরবে পাক অধিকৃত কাশ্মীর! সেনা কর্তার দাবি ঘিরে তুঙ্গে জল্পনা

 
সেনা জওয়ান

নিজস্ব প্রতিনিধি:  বহুদিন ধরেই পাক অধিকৃত কাশ্মীর ফেরানোর দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। অবিলম্বে সেটি ফেরানোর দাবিতে বিভিন্ন সময় কথা বলতে শোনা গিয়েছে রাজনীতিবিদদের। এমনকী কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদেরও একথা বলতে শোনা গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ফেরানো নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করলেন ভারতীয় সেনার এক শীর্ষ অধিকারিক। ওই আধিকারিক স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ পেলেই পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর পুনর্দখল করতে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনা। এ বিষয়ে নর্দান আর্মির কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল উপেন্দ্র দ্বিবেদী বলেছেন, "ভারত সরকারের নির্দেশ পালন করতে প্রস্তুত রয়েছে সেনা। এই ধরনের নির্দেশ দিলেই আমরা তা পালন করব।" সেই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী যে বক্তব্য পেশ করেছেন, সেই সূত্রেই এমন দাবি করছেন তিনি। এর পাশাপাশি তিনি বলেন, "যুদ্ধবিরতির সমঝোতা যাতে ভঙ্গ না হয় সেদিকেও ভারতীয় সেনাকে  খেয়াল রাখতে হবে। দুই দেশের স্বার্থে সেটি ভঙ্গ করা যায় না। কিন্তু ওরা (পাকিস্তান) যদি সেটি ভঙ্গ করে তাহলে আমরাও জবাব দিতে প্রস্তুত আছি।" এছাড়া ভারতীয় সেনায় নিয়োগ নিয়েও তাৎপর্যপূর্ণভাবে তিনি জানিয়েছেন, "দেশের পঞ্চাশ শতাংশ নাগরিকর বয়স পঁচিশের নিচে। অগ্নিবীর হিসেবে প্রশিক্ষণ দিলে তাঁদের একাংশকে আধাসেনা ও পুলিশ বাহিনীতে নিয়োগ করা যাবে। বাকি অংশ স্বনির্ভর হিসেবে কাজ করবেন।''

গত অক্টোবরের শেষে শ্রীনগরে গিয়ে ভারতীয় সেনা আয়োজিত শৌর্য দিবসে অংশ নিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং পাকিস্তানকে তীব্র আক্রমণ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখে উন্নয়ন শুরু হয়েছে। আমাদের লক্ষ্যে তখনই পৌঁছতে পারব যখন গিলগিট ও বাল্টিস্তানে পৌঁছতে পারব। সেই সঙ্গে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সাধারণ মানুষের উপর দমনপীড়নের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি পাক অধিকৃত কাশ্মীর পুনরুদ্ধারের বার্তা দিয়েছিলেন তিনি। নয়াদিল্লির লক্ষ্য যে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের গিলগিট এবং বাল্টিস্তান, সেটাই তখন স্পষ্ট করেছিলেন রাজনাথ। একই ভাবে চলতি বছরের কার্গিল বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে রাজনাথ সিং পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাঁর দাবি, পাক অধিকৃত কাশ্মীর এবং কাশ্মীর ভারতের অংশ ছিল, আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। এই অবস্থায় ভারতীয় সেনার শীর্ষ আধিকারিক উপেন্দ্র দ্বিবেদী পাক অধিকৃত কাশ্মীর পুনরুদ্ধার নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

বছর তিনেক আগের কথা। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন সাধারণ মানুষ। তাঁরা পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। পাকিস্তানের আধিপত্য থেকে মুক্তির দাবিতে সরব হয়ে ওঠেন তাঁরা। বহুদিন ধরেই তাঁদের দাবি রয়েছে পাক অধিকৃত কাশ্মীর এবং গিলগিট ও বাল্টিস্তানকে নিয়ে স্বাধীন সার্বভৌম দেশ গড়তে হবে। সাত দশক ধরেই পাকিস্তানের অপশাসন, অত্যাচার ও দমন পীড়ন থেকে মুক্তি পেতে চাইছেন সেখানকার বাসিন্দারা। স্বাভাবিকভাবেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষদের এই আওয়াজ ভারতের কাছে বড় হাতিয়ার হয়ে উঠেছে বলেই মনে করছে কূটনৈতিক মহল। যদিও পাকিস্তানের মিডিয়া এই বিষয়টি নিয়ে তখন উচ্চবাচ্য করেনি। কিন্তু শক্তিশালী সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই ঘটনা জানতে পারে গোটা বিশ্ব। তাই পাক অধিকৃত কাশ্মীর ফেরানো নিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং যে কথা বলেছিলেন, এবার সেই   সুরেই কথা বলতে শোনা গেল এক শীর্ষ সেনাকর্তাকে। তাই আগামী দিনে বিষয়টি কোন দিকে মোড় নেয় এখন সেটাই দেখার।

From around the web

Education

Headlines