×

শুরু ISRO-র প্রথম মহাকাশে মানব অভিযান ‘গগনায়ন’, তুঙ্গে প্রস্তুতি

 


নয়াদিল্লি:  কোভিড-১৯ প্যান্ডেমিকের জন্য থেমে থাকবে না ভারতের প্রথম হিউম্যান স্পেস মিশন ‘গগনায়ন’৷ এই মিশনের প্রস্তুতি সঠিক দিশাতেই চলছে বলে সোমবার জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ড.জিতেন্দ্র সিং৷ 

এদিন গত এক বছরে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র (ইসরো) এবং মহাকাশ বিভাগের সাফল্যের খতিয়ান তুলে ধরেন তিনি৷ ভবিষ্যতের জন্য পরিকল্পিত কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মিশনের কথাও জানান সিং৷ তিনি আরও জানান, কোভিড পরিস্থিতির জেরে রাশিয়ায় চার ভারতীয়র মহাকাশচারীর প্রশিক্ষণ স্থগিত হয়ে গিয়েছিল৷ তবে পুনরায় তাঁদের প্রশিক্ষণ চালু করা হয়েছে৷ ২০২২ সালে ভারতের স্বাধীনতা দিবসের আগেই নির্ধারিত পরিকল্পনা অনুযায়ী গগনায়ন অভিযান শুরু হবে৷ 

ইসরোর কর্মকাণ্ডে ব্যক্তিগত যোগদানকে আরও উৎসাহিত করতে ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল স্পেশ প্রমোশন অ্যান্ড অথোরাইজেশন সেন্টার নামে একটি নিয়ন্ত্রক সংস্থা প্রতিষ্ঠা করা হবে বলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন জিতেন্দ্র সিং৷ এর ফলে প্রতিভাবান বিজ্ঞানীরা বিদেশমুখো হবেন না বলেই আশাবাদী কেন্দ্র৷ 

মহাকাশ গবেষণায় আরও একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসাবে মহাকাশে ভারতের নিজস্ব স্পেস স্টেশন তৈরি করতে চলেছে ইসরো৷ ইসরো-র গগনায়ন মিশনে এই বিশাল প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ইসরো প্রধান৷ ইসরো-র এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে, মহাকাশে আরও একটি স্পেস স্টেশন থাকবে ভারতেরও৷

এদিকে চন্দ্রযান-৩ লুনার মিশন প্রসঙ্গে জিতেন্দ্র সিং বলেন, ‘‘আগামী বছর এই অভিযান শুরু করা হবে৷’’ অন্যদিকে জানা গিয়েছে, চাঁদের অন্ধকার পৃষ্ঠে চন্দ্রযান-৩ এর সফট ল্যান্ডিংয়ের জন্য কাজ শুরু করেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই গবেষক৷  প্রথমবার সফল না হলেও চাঁদের মহাকাশযানের সফট ল্যান্ডিং করাতে মরিয়া ইসরোর বিজ্ঞানীরা৷ চাঁদ ছাড়াও অন্যান্য গ্রহ-উপগ্রহেও মহাকাশযানের সফট ল্যান্ডিং করাতে চায় ইসরো৷ এই কর্মযজ্ঞে রয়েছে যাদবপুরের দুই গবেষক সায়ন চট্টোপাধ্যায় এবং অমিতাভ গুপ্ত৷ ভারতের গগনায়ন অভিযান সফল হবে বলে আশাবাদী প্রথম মহারাশচারী রাকেশ শর্মাও৷ 

From around the web

Education

Headlines