×

শুধু BF.7 নয়, আরও ৪ ভ্যারিয়েন্টের 'লীলায়' কোভিডধ্বস্ত চিন

 
করোনা

নয়াদিল্লি: নতুন বছর শুরু মুখে আবার ফিরে এসেছে করোনা ত্রাস। এবারও সেই চিন থেকে। শেষ কয়েক সপ্তাহের তথ্য বলছে, এখন কার্যত করোনাধ্বস্ত লাল ফৌজের দেশ। লাগাতার সংক্রমণ এবং মৃত্যু বৃদ্ধি হচ্ছে সেখানে। হাসপাতাল তো বটেই, শ্মশানেও নাকি জায়গা হচ্ছে না দেহ রাখার। এই আবহে অবশ্য কোভিড বিধি প্রত্যাহার করার কথা জানিয়েছে বেজিং সরকার। 'বজ্র আঁটুনি ফস্কা গেড়ো' থেকে হয়তো বেরতে চাইছে চিন। এবার জানা গেল, শুধু একটি ভ্যারিয়েন্টের কারণে এই অবস্থা নয় সেখানে। বিএফ.৭ ছাড়াও আরও ৪ টি প্রজাতির কারণে জিংপিংয়ের দেশে এই হাল।

আরও পড়ুন- ৮-১০ ফুট পুরু বরফের আস্তরণ রাস্তায়! 'বম্ব সাইক্লোন' প্রাণ কাড়ল বহু মানুষের

ভারতের কোভিড প্যানেলের প্রধান এনকে অরোরা সংবাদমাধ্যমে এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, চিনের লাগাম ছাড়া সংক্রমণের জন্য ওমিক্রনের সাব ভ্যারিয়েন্ট বিএফ.৭-কেই দায়ী করা হচ্ছিল। তবে শুধুমাত্র তার জন্য এই অবস্থা নয়। আরও বেশ কয়েকটি ভ্যারিয়েন্টও সে দেশের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য দায়ী। অর্থাৎ, চিনে এখন করোনা ভাইরাসের প্রজাতির 'ককটেল' হয়ে গিয়েছে। এনকে অরোরা জানাচ্ছেন, বিএফ.৭ ছাড়াও চিনে এই মুহূর্তে দাপট দেখাচ্ছে বিএন, বিকিউ প্রজাতি। তার সঙ্গে আছে এসভিভি প্রজাতিও। চিনের যা হাল তার জন্য বিএফ.৭ প্রজাতি দায়ী মাত্র ১৫ শতাংশ বলে মত তাঁর।

তবে চিনে এমন অবস্থা কেন হল? বিশেষজ্ঞদের অনুমান, টানা লকডাউন, কোভিড বিধির ফলে সেখানকার মানুষদের মধ্যে হার্ড ইমিউনিটি তৈরিই হয়নি। ভাইরাসের সঙ্গে কী ভাবে যুজতে হবে তা শেখেনি চিনারা। এদিকে, কোভিড টিকার মান অত্যন্ত খারাপ ছিল সে দেশে, তারওপর বেশিরভাগ মানুষ টিকা নেয়নি। সব মিলিয়ে এখন ত্রাহি ত্রাহি রব ভারতের পড়শি দেশে।   

From around the web

Education

Headlines