×

ঋতুস্রাবে ব্যবহৃত স্যানিটারি প্যাডেই লুকিয়ে ক্যানসারের আতঙ্ক, দাবি সমীক্ষায়

 
pad

 মুম্বই:  ঋতুস্রাব চলাকালীন মহিলাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে৷ কাপড়ের বদলে ‘স্যানিটারি প্যাড’ ব্যবহারের উপর বরাবরই গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু, সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেল, বহু ব্যবহৃত ‘স্যানিটারি প্যাড’ মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়৷ ভারতে বিক্রিত প্রায় সব ধরনের প্যাডেই লুকিয়ে রয়েছে ক্যানসার ছড়ানোর বিভিন্ন যৌগ৷ অথচ আমাদের দেশে প্রতি ৪ জন মহিলার মধ্যে ৩ জনই স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার করে থাকেন৷ সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে এই গবেষণার ফল যথেষ্ট উদ্বেগজনক৷ 

আরও পড়ুন- শুক্রাণুর ঘনত্ব ও সংখ্যা কমছে হু-হু করে, প্রজনন ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বেগে বিজ্ঞানীরা


চিকিৎসকরা বলছেন, স্যানিটারি প্যাডের মধ্যে এমন কয়েকটি রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে যা ক্যানসারের বীজ বহন করছে৷ ভয়ের বিষয় হল, ঋতুস্রাব চলাকালীন শরীর থেকে যে রক্ত এবং রক্তকোষ নির্গত হয়, তা প্যাডের মধ্যে থাকা রাসায়নিকগুলিকে শুষে নেয়। ফলে এই ভাবে দীর্ঘ সময় থাকলে তা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক৷ এতে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাও বহু গুণ বেড়ে যায়৷ 


ঋতুস্রাব চলাকালীন পরিচ্ছন্নতার উপর জোর দিতে এক বার ব্যবহারযোগ্য স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। এতে পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা সম্ভব হলেও, এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে ভয়ঙ্কর এক বিপদ৷ ফলে এই অভ্যাস কতটা স্বাস্থ্যকর বলে প্রামাণিত হবে, সে বিষয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।


স্যানিটারি প্যাড নিয়ে এই সমীক্ষাটি চালায় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷ এই সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে, ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সি প্রায় ৬৪ শতাংশ তরুণী প্রতি মাসে অন্ততপক্ষে পাঁচ দিন স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার করে থাকেন। সমাজের উচ্চ স্তরের মহিলাদের মধ্যে এই স্যানিটারি প্যাড ব্যবহারের পরিসংখ্যান আরও বেশি। 

এদিকে গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভারতে তৈরি স্যানিটারি প্যাডগুলির মধ্যে কার্সিনোজেন, রিপ্রোডাক্টিভ টক্সিন, এন্ডোক্রিন, অ্যালার্জেনের মতো কিছু ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। বিশেষজ্ঞদের দাবি, স্যানিটারি প্যাড তৈরির ক্ষেত্রে এই ধরনের রাসায়নিক যৌগ কিংবা ক্ষতিকারক দিকগুলোর কথা বিবেচনাই করেন না প্রস্তুতকারকরা৷ অথচ এই রাসায়নিক যৌগগুলোই মহিলাদের শরীরে রোগ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে৷ 

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, প্যাডের মধ্যে থাকা Phthalates নামক ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থটি ক্যানসারের জন্য দায়ী। এটি মূলত বিভিন্ন ধরনের প্লাস্টিকজাত পণ্য তৈরির ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। Phthalates পণ্যকে নমনীয় করে তুলতে সাহায্য করে। প্রায় এক শতাব্দী ধরে এই Phthalates নামের বিষাক্ত পদার্থটি প্রসাধনী পণ্য ও স্যানিটারি প্যাডে ব্যবহার করা হয়ে আসছে৷

ওই গবেষণা থেকে আরও জানা গিয়েছে, ভারতে সর্বাধিক বিক্রিত দুটি স্যানিটারি প্যাডে ছয় ধরণের Phthalates রয়েছে। এর মধ্যে phthalates এর মোট ঘনত্ব কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৯,৬০০ মাইক্রোগ্রাম। এটাই এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি৷ এছাড়াও ১২ ধরনের phthalates মিলেছে  বিভিন্ন ধরনের স্যানিটারি প্যাডের মধ্যে৷ 

From around the web

Education

Headlines