×

'ক্যালেন্ডার গার্ল' থেকে হলেন 'মোদী জি কি বেটি'! বললেন নরেন্দ্র মোদী আমার বাবা

 
অবনি মোদী

আমেদাবাদ: গুজরাটের গান্ধীনগরের মেয়ে। এই শহরেই জন্ম, এখানেই বেড়ে ওঠা। ছিলেন অহমেদাবাদের এইচএল কলেজের ছাত্রী। কলেজের প্রায় সবকটি ইভেন্টেই সক্রিয় ভূমিকায় দেখা যেত তাঁকে। সেখান থেকেই জন্মায় অভিনয়ের প্রতি ভালোবাসা৷ স্নাতক পাশ করার পর একটি বেসরকারি চ্যানেলে সঞ্চালনার কাজে যোগ দেন অবনি মোদী। আর সেখান থেকেই শুরু হয় তাঁর সফর। 

আরও পড়ুন- মাত্র ১৭ বছরে ক্যানসার আক্রান্ত হন, ফুসফুসে ১৯সেমি টিউমার, কী ভাবে লড়েছেন ঐন্দ্রিলা?

এর পর ধীরে ধীরে বিজ্ঞাপনে কাজ করতে শুরু করেন অবনি। সেখান থেকে নান ‘রাজাভাগা পোগিরেন’ নামের একটি তামিল ছবিতে আসে অভিনয়ের সুযোগ। ওই ছবিতে তাঁর বিপরীতে ছিলেন নকুল কুমার৷ এরপর অবনিকে দেখা যায় গুলাব নামের একটি শর্ট ফিল্মে৷ তবে পরিচিতি মেলে ২০১৫ সালে মধুর ভান্ডারকরের ‘ক্যালেন্ডার গার্লস’ ছবিতে অভিনয়ের সূত্রে। ওই ছবিতে তাঁর চরিত্রের নাম ছিল নাজনিন৷ সেখান থেকে গুজরাতি ছবি ক্যারি অন কেশরে দেখা দেখা মেলে তাঁর৷ তবে ২০১৬ সালের পর হঠাৎ করেই বিনোদন জগৎ থেকে উধাও হয়ে যান ক্যালেন্ডার গার্ল। ৬ বছর পর তিনি ফিরলেন ‘মোদী জি কি বেটি’ হয়ে!


অবাক লাগছে? ভাবছেন তো বিষয়টা কী? তাহলে খুলে বলি৷ আসলে গত ১৪ অক্টোবর ‘মোদী জি কি বেটি’ নামে একটি ছবি রিলিজ করেছে। এডি সিং পরিচালিত ওই ছবিটি রীতিমতো শোরগোল ফেলেছে। ফেলবে নাই বা কেন? ছবিতে অবনির একটি সংলাপই তোহলকা সৃষ্টি করার জন্য কাফি৷ তাঁর দাবি, তিনি দেশের  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর  মেয়ে। সবটাই অবশ্য চিত্রনাট্যের জন্য৷ 


তবে দিন কয়েক আগে একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় এই মডেল অভিনেত্রী বলে বলেছিলেন, নরেন্দ্র মোদী তাঁর বাবা। ব্যস আগুন জ্বালানোর জন্য এইটুকুই যথেষ্ট! ঘটনার নেপথ্য কাহিনি না জেনেই উঠেছিল বিতর্কের ঝড়৷ তবে এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া জানাননি প্রধানমন্ত্রী৷ অপেক্ষা করছিলেন সঠিক সময়ের৷ কারণ তিনি জানতেন, শীঘ্রই সত্যটা সকলে জানতে পারবে৷ 


 

মোদী জি কি বেটি ছবিটি হাস্য কৌতুকে ভরা। মজাদার ছন্দে ছবিটি পরিচালনা করা হয়েছে। সিনেমার চিত্রনাট্য অসাধারণ। নিজেকে উজার করে দিয়েছেন অবনিও৷ এতদিন প্রকৃতপক্ষে নিজের ক্যারিশ্মা দেখানোর সুযোগ পেয়েছেন তিনিও৷ এই ছবির গল্প দু'জন বোকা জঙ্গিকে নিয়ে৷ যারা নিজেদের শ্রেষ্ঠ প্রমাণ করতে গিয়ে নিজেদের মূর্খতার পরিচয় দিয়ে বসে৷ টিভিতে তারা দেখে, একজন মেয়ে নিজেকে মোদীজির কন্যা বলে দাবি করছে। সেই ভুয়ো খবরেই বিশ্বাস করে তাঁকে ভারত থেকে অপহরণ করে পাকিস্তানে নিয়ে চলে যায়। এতে ফাঁপড়ে পড়ে তারাই।


 

From around the web

Education

Headlines