Aajbikel

মহামন্দা! বাজারে টাকার জোগান বাড়াতে বড় ঘোষণা RBI-এর

 | 
মহামন্দা! বাজারে টাকার জোগান বাড়াতে বড় ঘোষণা RBI-এর


নয়াদিল্লি: একদিকে করোনার তাণ্ডব, অন্যদিকে করোনা রুখতে লকডাউন৷ জোড়া চাপে জেরবার দেশের অর্থনীতি৷ পড়ছে শেয়ারবাজার, কমছে টাকার মূল্য৷ বাড়ছে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির আশঙ্কা৷ পরিস্থিতি এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে, দেশের জিডিপি বৃদ্ধির হার কম করে দেড় থেকে ২ শতাংশের নিচে নামার ইঙ্গিত দিয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক ও দেশিয় সংস্থা৷ এই পরিস্থিতি যুঝতে বাজারে নগদের জোগান বাড়ানোর পাশাপাশি রিভার্স রেপোরেট কমিয়ে নিজেদের পিঠ বাঁচানোর চেষ্টা রিজার্ভ ব্যাংকের৷

করোনার জেরে মার্কিন ডলারের তুলনায় লাগাতার পড়েছে ভারতীয় টাকার মূল্য৷ কমছে শেয়ারদর৷ করোনার জেরে দেশের কমপক্ষে ৭০ লক্ষ মানুষ কর্মহীন হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে৷ অদূর ভবিষ্যতে দেশের আর্থিক পরিস্থিতিকোথায় গিয়ে ঠেকবে, তা নিয়ে গভীর অনিশ্চয়তা দেখা গিয়েছে৷ ভারতের পাশাপাশি টালমাটাল বিশ্বের অর্থনীতি৷ আর পরিস্থিতির মধ্যে  শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে বেশ বাজারে টাকার জোগান বাড়ানো ও অর্থিক প্যাকেজ দেওয়ার বিষয়ে বেশ কিছু পদক্ষে নেওয়ার কথা জানিয়েছে রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস৷

ব্যাংকে নগদের জোগান বাড়াতে ইতিমধ্যেই রিভার্স রেপোরেট ২৫ শতাংশ কমিয়ে দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাংক৷ পরিবর্তিত রেভার্স রেপোরেটের হার দাঁড়িয়েছে ৩.৭৫ শতাংশের৷ যে হারে দেশের ব্যাংকগুলিকে ঋণ দেয় আরবিআই, সেই বিষয়টিকে বলে হয় রেপো রেট৷ আর যে হারে ব্যাংক থেকে টাকা ধার নেয় আরবিআই, সেই ব্যবস্থাকে বলা হয়ে থাকে রিভার্স রেপো রেট৷

মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন, ২০২০ সালে আর্থিক বৃদ্ধি ১.৯ শতাংশ হারে হতে পারে৷ তবে আগামী অর্থবর্ষে সেই বৃদ্ধির হার ৭.৪ শতাংশ হতে পারে বলেও আশাপ্রকাশ করা হয়েছে৷ জিডিপির ৩.২ শতাংশ নগদের জোগান দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি৷ করোনা পরিস্থিতির মধ্যে জি ২০ দেশগুলির মধ্যে ভারতের বৃদ্ধির হার সবচেয়ে বেশি বলেও দাবি করেছেন গভর্নর দাস৷ যদিও করোনা পরিস্থিতকে মহামন্দার সঙ্গে তুলনা করেছে ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ড৷

Around The Web

Trending News

You May like