Aajbikel

মারুতির নজরে CNG, যা গ্রিন ভেহিকলের গেম চেঞ্জার হয়ে উঠতে পারে

 | 
cng

নয়াদিল্লি:  গোট বিশ্ব দ্রুতগতিতে অটোমোবাইলের ইলেকট্রিফিকেশনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। চিন এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভুক্ত দেশগুলির গতিকে ছুঁতে চাইছে ভারত। যদিও সরকার চার চাকার বাণিজ্যিক যানবাহন এবং দুই চাকার গাড়ির বিদ্যুতায়নের দিকে মনোনিবেশ করছে৷ এই বিষয়ে নির্মাতা এবং ক্রেতা উভয়কেই একাধিক পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। তবে বরাবরের মতো, ভারতে বৈদ্যুতিন যানবাহনের ক্ষেত্রে পোস্টার বয় কিন্তু চারচাকার গাড়িই৷ 

আরও পড়ুন- রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতিতে ধাক্কা শেয়ার বাজারে, হুড়মুড়িয়ে পড়ল সেনসেক্স

উচ্চ ব্যাটারি ক্ষমতা এবং আধুনিক বৈশিষ্ট্য যুক্ত বৈদ্যুতিন গাড়িগুলিকে ভারতের ক্রমবর্ধমান ইভি সেগমেন্ট প্রবেশের উপায় হিসাবে দেখা হয়। প্রচুর পাবলিক ট্রান্সপোর্ট প্রস্তুতকারক সংস্থার পাশাপাশি বিলাসবহুল গাড়ি নির্মাতারাও এখন ভারতীয় গ্রাহকদের জন্য ইভি অফার করছে। এরই মধ্যে প্রথম সারির গাড়ি নির্মাতা মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া আরও একবার বৈদ্যুতিক তরঙ্গ সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, বৈদ্যুতিন গাড়ি নয়, তাদের কাছে ক্লিন এনার্জি হল সিএনজি (কমপ্রেসড প্রাকৃতিক গ্যাস)।
মারুতি সুজুকি এই বিষয়ে প্রাথমিকভাবে চিন্তা ভাবনা শুরু করার সময় ওয়াগন আর-এর ইলেকট্রিক ভার্সাল আনার চিন্তাভাবনা করেছিল৷  পরবর্তী সময়ে সংস্থা ছোট বৈদ্যুতিক গাড়ির বদলে তাদের সমস্ত গাড়িতেই সিএনজি আনার চিন্তাভাবনা শুরু করে৷ ভারতে সিএনজি গাড়ির শ্রেষ্ঠ সম্ভার নিয়ে এসেছে মারুতি৷ যা গ্রিন ভেহিকলের গেম চেঞ্জার হয়ে উঠতে পারে৷ 

কোম্পানির আশা চলতি অর্থবর্ষে সিএনজি ভেরিয়েন্টের ২.৫ লক্ষ ইউনিট বিক্রি করা সম্ভব হবে৷ ২০২১ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ১.৬০ লক্ষ ইউনিট৷ ২০১৯-এ ১.০৫ লক্ষ ইউনিট এবং ২০১৮ সালে .৭৫ লক্ষ ইউনিট। সিএনজি গাড়ির বিক্রিয় প্রতি মাসে ধাপে ধাপে বৃদ্ধি পেয়েছে৷ 
 

Around The Web

Trending News

You May like