×

সংবিধানে বদল আনছে তৃণমূল, থাকবে মমতার 'ডেপুটি'

 
মমতা

কলকাতা: তিনি দলের নেত্রী, তিনিই দলের মাথা, তিনিই সব। তৃণমূল কংগ্রেসের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এইভাবে অনায়াসে ব্যাখ্যা করা যায়। দীর্ঘ সময় ধরে দলকে এক হাতে চালাচ্ছেন। সব ধরণের ছোট থেকে বড় সিদ্ধান্ত তাঁকে ছাড়া নেওয়ার কথা কল্পনা করতে পারে না ঘাসফুল শিবিরের কেউ। দলের কর্মী, নেতারা প্রত্যেকেই মানেন যে এই দলের একজন নেতা, তিনি মমতা। তৃণমূল প্রতিষ্ঠা করার পর বহু লড়াই করে প্রথমবারের জন্য ২০১১ সালে ক্ষমতায় এসেছিলেন মমতা। এখন জেতার হ্যাট্রিক করেছেন তিনি। তৃতীয় বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন তিনি গত বছর। এতদিন নিজের কাজ নিজেই সামলেছেন। কিন্তু এখন সময় বদলেছে। তাই দলও তার সংবিধান বদলাচ্ছে অবশেষে।

জানা গিয়েছে, বড় বদল ঘটতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেসের সংবিধানে। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 'ডেপুটি' আনছে তারা। প্রথমবার ‘জাতীয় কার্যনির্বাহী সভাপতি’ পদ আনতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যিনি তৃণমূল সুপ্রিমো বাইরে থাকলে তাঁর ভূমিকায় কাজ করবেন। অর্থাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রত্যক্ষভাবে সাহায্য করার জন্যই এই পদ। এখন স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে যে এই পদে কে আসবেন। একাধিক নাম নিয়ে জল্পনা সৃষ্টি হলেও প্রথম নাম ভাবনায় আসছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তবে তিনি এখন একদিকে সাংসদ অন্যদিকে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি। তাই তিনি এই পদে আসবেন কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। তবে গোটা বিষয়টি নির্ভর করছে দলীয় সিদ্ধান্তের ওপর। একই সঙ্গে জানা গিয়েছে, ‘জাতীয় পরিষদ' গঠন করতে চলেছে তৃণমূল শিবির। তার সদস্য সংখ্যা হবে দু’‌হাজার।

এখন আর শুধু বাংলায় নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখতে চাইছে না তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যান্য রাজ্যতেও সংগঠন মজবুত করার কাজ করছে তারা। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরায় নির্বাচন লড়েছে মমতা বাহিনী, অন্যদিকে গোয়া সহ অন্য বিজেপি রাজ্যে ভোট প্রস্তুতি নিচ্ছে। এই সময় 'দলীয় গণতন্ত্র'-এর ওপর জোর দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, এই গোটা বিষয়টি ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্কপ্রসূত। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও এতে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছেন।

From around the web

Education

Headlines