Aajbikel

রাজ্যে সাত দফায় ভোট, এমনটা যে হবে ২৩ ফেব্রুয়ারি বলেছিল 'আজ বিকেল', ৪ জুন ফল ঘোষণা

 | 
ভোট

নিজস্ব প্রতিনিধি: তৃণমূল দাবি করেছিল পশ্চিমবঙ্গে এক দফায় লোকসভা নির্বাচন করানো হোক। কিন্তু সেই দাবি ধোপে টিকল না। পশ্চিমবঙ্গে ৭ দফায় নির্বাচনের  কথা শনিবার ঘোষণা করল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এদিন নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার জানিয়েছেন ১৯ এপ্রিল থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গেও ১৯ এপ্রিল থেকে ভোট শুরু হবে। শেষ হবে ১ জুন। ফল প্রকাশ ৪ জুন। প্রথম দফায় উত্তরবঙ্গের একাধিক লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হবে। যে খবর গত ২৩ ফেব্রুয়ারি আগাম জানিয়ে দিয়েছিল 'আজ বিকেল'। সেটাই এদিন বাস্তবে দেখা দিল। ঘটনা হল নজিরবিহীন নিরাপত্তায় পশ্চিমবঙ্গে লোকসভা ভোট করাতে বদ্ধপরিকর জাতীয় নির্বাচন কমিশন। তার জন্য যা যা করা দরকার তার সবটাই তাঁরা করবেন বলে আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার। গত  লোকসভা নির্বাচনেও পশ্চিমবঙ্গে সাত দফাতে ভোট হয়েছিল। সেই সঙ্গে এবার থাকছে ৯২০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনীর আঁটোসাঁটো নিরাপত্তা। সবমিলিয়ে লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গকে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হচ্ছে।

আসলে বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে যে সীমাহীন সন্ত্রাস হয়েছে, অসংখ্য মানুষের মৃত্যু হয়েছে, তা থেকে শিক্ষা নিয়েই পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে কমিশনের এই পদক্ষেপ। সন্দেশখালির ঘটনা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ তথা দেশ জুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। তাই পশ্চিমবঙ্গে সুষ্ঠুভাবে ভোট করানোটাকে কমিশন রীতিমতো চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছে। শনিবার নির্বাচন ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা আগে তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ দাবি করেছেন এক দফায় ভোট করানো হোক এবং তাতে সুষ্ঠুভাবে ভোট হবে, আর তৃণমূল ৩০ থেকে ৩৫টি আসন পাবে। আগেও এই দাবি জানিয়েছে তৃণমূল। কিন্তু কমিশন সেই দাবিতে কর্ণপাত করল না। নিরাপত্তার স্বার্থে বহুদিন ধরেই
পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত লোকসভা আসনের অন্তর্গত স্পর্শকাতর বুথগুলি নিয়ে তথ্য নিতে শুরু করেছিল কমিশন। এ ব্যাপারে জেলা পুলিশ প্রশাসনের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে কমিশন। তার ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের মোতায়েন করার সুপারিশ করবে কমিশন। 

এক্সক্লুজিভ
উল্লেখ্য পঞ্চায়েত নির্বাচন এক দফাতেই হয়েছে। অথচ তৃণমূল যখন বিরোধী দলে ছিল তখন তারা বারবার একাধিক দফায় নির্বাচন করানোর ব্যাপারে দাবি তুলত। ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে পরিবর্তনের বছরে ছয় দফায় বিধানসভা নির্বাচন হয়েছিল। সেই সঙ্গে গোটা পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেকটি বুথকে সেবার মুড়ে ফেলা হয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায়। এবার সেই নিরাপত্তাকেও ছাপিয়ে যাচ্ছে কমিশন। সূত্রের খবর প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা রাজ্যে আরও বাড়ানো হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে পশ্চিমবঙ্গে  লোকসভা নির্বাচন শুরু হতে চলেছে ১৯ এপ্রিল থেকে।

Around The Web

Trending News

You May like