×

মহাভোজ! পুরুলিয়ায় দলীয় নেতার বাড়িতে পেট পুরে খেলেন ‘মহাগুরু’ মিঠুন, কী ছিল মেনুতে?

 
মিঠুন

 পুরুলিয়া: রাজনৈতিক সন্ন্যাস কাটিয়ে গেরুয়া হওয়ার পর এই প্রথম রাঢ়বঙ্গ সফরে বেরিয়েছেন মিঠুন চক্রবর্তী৷ আগামী পাঁচদিন বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরবেন তিনি৷ শুরু হয়ে হয়েছে পুরুলিয়া দিয়া৷ শেষ হবে অনুব্রতর বীরভূমে এসে৷ বুধবার ছিল সেই সফরের প্রথম দিন৷ সেখানে জনসভা সেরে এক দলীয় কর্মীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সারেন ‘মহাগুরু’। তাঁর আগমন উপলক্ষে ছিল এলাহি আয়োজন।

আরও পড়ুন- রাজ্য সম্পূর্ণ ব্যর্থ! ডেঙ্গি নিয়ে এবার জনস্বার্থ মামলা


পাঁচ দিনের বঙ্গ সফরের উদ্দেশে মঙ্গলবারই কলকাতায় পা রাখেন মিঠুন। বুধবার সকালে  মিঠুনের সঙ্গে পুরুলিয়া যাওয়ার কথা ছিল সুকান্তরও৷ কিন্তু, আজ রাজভবনে নতুন রাজ্যপালের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বলে সফর বাতিল করেন বঙ্গ বিজেপি সভাপতি। ফলে পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোতির্ময় সিংহ মাহাতোকে সঙ্গে নিয়ে রওনা দেন বিজেপি’র তারকা সদস্য মিঠুন।


বুধবার দুপুরে লধুড়কার সভা শেষ করে জেলায় দলের সহ-সভাপতি ফাল্গুনী চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেয় মিঠুনের গাড়ি। সেখানেই তাঁর ভোজের আয়োজন করা হয়েছিল৷ ফাল্গুনীর বাড়িতে রীতিমতো পঞ্চব্যঞ্জনে খেতে দেওয়া হয় ‘মহাগুরু’কে। এদিকে, মিঠুনও খাদ্যরসিক বলেই পরিচিত৷ তিবি সব কিছুই অল্প অল্প করে খেয়েছেন বলে জানান ফাল্গুনী। রান্নার তারিফও করেন। এদিন মহাগুরুর পাতে ছিল, সাদা ভাত, মুগের ডাল, শাক ভাজা, আলু ভাজা, বেগুন ভাজা, পনিরের তরকারি, কাতলার কালিয়া, চারা পোনার ঝোল, পোলাও, ফ্রায়েড রাইস, দই, পায়েস এবং মিষ্টি।


মন ভরে খাওয়ার পর মিঠুন ফাল্গুনীর কাছে জানতে চান, এত রান্না কে করল? ফাল্গুনী জানান,  তিনি আসবেন শুনে বোনেদের সঙ্গে সাত সকাল থেকে তাঁর মা-ই সব আয়োজন করেছেন। শুনে তাঁদের সঙ্গেও দেখা করে কথা বলেন মিঠুন। ঘণ্টাখানেক থাকার পর ফাল্গুনীর মা’কে প্রণাম জানিয়ে পুরুলিয়া শহরের দিকে রওনা দেন ‘মহাগুরু’৷ 

From around the web

Education

Headlines