×

দুর্যোগেও সংঘাত! ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকায় যেতে দিলীপ ঘোষকে বাধা

 

কলকাতা: অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা পরিদর্শনে যেতে দেওয়া হল না বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে৷ তাঁর পথ আটকানোর অভিযোগ উঠল পুলিশের বিরুদ্ধে৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফের ভারতীয় জনতা পার্টি এবং তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে শুরু হল চাপানউতোর৷ 

শনিবার সকালে আমপান বিধ্বস্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং ও বাসন্তীর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷ সেখানে ত্রাণ সামগ্রি বিলি করার কথা ছিল তাঁর৷ কিন্তু অভিযোগ, গড়িয়ার কাছে ঢালাই ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় তাঁর গাড়ি আটকায় পুলিশ। 

দিলীপ ঘোষ বলেন, “আমি জানি না, কেন সাইক্লোন বিধ্বস্ত এলাকায় আমাকে যেতে দেওয়া হল না। অথচ এই সকল এলাকায় গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিলি করছেন তৃণমূলের নেতারা৷ তাঁদের তো আটকানো হচ্ছে না৷ শুধুমাত্র বিজেপি নেতাদের ক্ষেত্রে নিয়ম পাল্টানো হচ্ছে৷”

শুক্রবারই রাজ্যে সুপার সাইক্লোনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলি আকাশপথে পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ ক্ষয়ক্ষতির মোকাবিলা করতে ১ হাজার কোটি টাকা আর্থিক সাহায্যের প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি৷ সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। এবং আহতদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে। এর ঠিক পরের দিনই ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে পুলিশি বাধার মুখে এই মন্তব্য করেন দিলীপ ঘোষ৷ এমনকী তাঁকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যেতে দেওয়া না হলে, ধরনায় বসার হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিজেপি রাজ্য সভাপতি৷ তিনি বলেন, “যদি রাজ্য সরকার ত্রাণ নিয়ে রাজনীতি করতে চায়, তাহলে আমাদের কর্মীদের কাছ থেকে এর যথাযথ জবাব পাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে৷”

পিটিআই সূত্রে খবর, এদিন পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিও হয় রাজ্য সভাপতির সফরসঙ্গী বিজেপি কর্মীদের৷ রাস্তা ফাঁকা করতে পুলিশকর্মীদের তাঁরা ধাক্কা দেন বলেও অভিযোগ৷ যদিও এই বিষয়ে পুলিশের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি৷ অন্যদিকে, বিজেপি’র বিরুদ্ধে ত্রাণ নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন কলকাতার মেয়র ফিরাদ হাকিম৷  

From around the web

Education

Headlines