Aajbikel

'সিএএ-তে নাম লেখালেই চলে যাবে নাগরিকত্ব', কেন বললেন মমতা?

 | 
মমতা

 কৃষ্ণনগর: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর থেকেই তার বিরোধিতা করে আসছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ তবে এবার মতুয়াদের উদ্দেশে একেবারে সতর্কবাণী শোনা গেল বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলায়৷ তিনি বলে দিলেন একবার সিএএ-তে নাম লেখালেই ৫ বছরের জন্য চলে যাবে নাগরিকত্ব৷ এনআরসির আওতায় পড়বেন। রবিবার নদিয়ার ধুবুলিয়ার সভামঞ্চ থেকে মতুয়াদের এভাবেই সতর্ক করেন তিনি৷ এর পরই বিজেপিকে ‘জুমলা পার্টি’ বলে খোঁচা দিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, “ওদের তো অনেক মতুয়া নেতা-মন্ত্রী আছে। তাঁরা আবেদন করছেন না কেন? আবেদন করলে তো আর ভোটে দাঁড়াতে পারবেন না।” একইসঙ্গে সিএএ-কে ট্র্যাপ বলেও ঘোষণা করেন তৃণমূল সুপ্রিম যদিও বিজেপি এই ইস্যুতে লাগাতার দাবি করেছে, জনসাধারণকে সিএএ নিয়ে ভুল বোঝাচ্ছে তৃণমূল।


রাজনৈতিক পন্ডিতদের দাবি, পশ্চিমবঙ্গে ২০১৯ লোকসভায় পাওয়া ১৮টি আসনের সংখ্যা এবার আরও বাড়াতে চায় বিজেপি। রানাঘাট এবং বনগাঁ এই দুটি সিটের বিষয়ে বিজেপি নিশ্চিত হলেও মতুয়া অধ্যুষিত কৃষ্ণনগর এবার বিজেপির রীতিমত টার্গেট৷ সেক্ষেত্রে সংসদ থেকে বহিস্কৃত হওয়া সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে ফের টিকিট দিয়ে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন তৃণমূল সু্প্রিমোও৷ রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, সিএএ লাগু করে নির্বাচনের আগে মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছে গেরুয়া শিবির। দেশজুড়ে কার্যকর করেছে সিএএ। গেরুয়া শিবিরের আশা, এই বৈঠায় ভর দিয়ে বনগাঁ-রানাঘাট, কৃষ্ণনগরের মতো একাধিক বিধানসভা কেন্দ্রে বৈতরণী পার করা যাবে। আর সেটা কোনও একটা জায়গায় চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেসকেও৷ সিএএ হল মাথা, আর এনআরসি হল ল্যাজা। এমনও কটাক্ষ করে মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষদের বার্তা দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

Around The Web

Trending News

You May like