×

জেলেই থাকছেন  অনুব্রত! বাড়ল হেফাজতের মেয়াদ, আদালতে বিস্ফোরক তথ্য সিবিআই-এর

 
অনুব্রত

কলকাতা: এখনই মিলছে না মুক্তি৷ গরু-পাচার মামলায় বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিল আদালত। এদিন আসানসোলের সিবিআই আদালতে অনুব্রতকে তোলা হয়৷ তবে এদিন তাঁর হয়ে জামিনের আবেদন করেননি কেষ্টর আইনজীবী। বৃহস্পতিবার আদালতে একটি কেস ডায়েরি জমা দেয় সিবিআই৷ 

আরও পড়ুন- বাংলা শিখবেন রাজ্যপাল, সরস্বতী পুজোয় হবে হাতেখড়ি, রাজভবনে আসবেন মমতা

এদিন সিবিআই অফিসার সুশান্ত ভট্টাচার্য বিচারককে আদালতে একটি কেস ডায়েরি জমা দেন। ওই কেস ডায়েরিতে বিস্ফোরক দাবি করা হয়েছে৷ সেখানে বলা হয়েছে, বীরভূম কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কে ২৩১টি ভুয়ো অ্যাকাউন্টের হদিশ মিলেছে। যার মধ্যে ২০০টি অ্যাকাউন্ট একজনেরই সই দিয়ে খোলা হয়েছিল বলে দাবি সিবিআইয়ের। এ ছাড়াও এদিন আদালতে বাফারিং অ্যাকাউন্টের কথাও জানায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। যার অর্থ, এই ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে আর্থিক লেনদেনও হয়েছে৷ 

এরপরই বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী সিবিআই অফিসারদের কাছে জানতে চান, ওইসব অ্যাকাউন্টের সঙ্গে অনুব্রত মণ্ডলের কোনও যোগসূত্র আছে কি? সেই প্রশ্নের উত্তরে সিবিআইয়ের তরফে জানানো হয়, ওই অ্যাকাউন্ট থেকে যে লেনদেন হয়েছে, তার সঙ্গে বীরভূমের দু’টি রাইস মিলের যোগ রয়েছে। এরপরই বিচারক জানতে চান, যেসব অ্যাকাউন্টের কথা বলা হচ্ছে, সেই অ্যাকাউন্টে যাঁদের নাম রয়েছে, তাঁদের কারও বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে কী? উত্তরে সিবিআই জানায়, কয়েকজনের বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। তাঁরা জানিয়েছেন যে, এইসব অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তাঁদের কোনও ধারণা নেই।

 

এখন প্রশ্ন হল, তাহলে কীভাবে এই অ্যাকাউন্টগুলি খোলা হল? তদন্তকারী অফিসাররা জানিয়েছেন, সাক্ষীদের বয়ান অনুযায়ী তাঁরা পঞ্চায়েত অফিসে আধার কার্ডের প্রতিলিপি জমা দিয়েছিলেন, সেই আধার কার্ড ব্যবহার করেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷ 

From around the web

Education

Headlines