×

BREAKING: SSC গ্রুপ ডি মামলায় CBI-এর পুরনো সিট ভেঙে নতুন সিট গড়ল কলকাতা হাই কোর্ট

 
হাইকোর্ট

কলকাতা:  স্কুলে গ্রুপ ডি মামলার তদন্তে এবার সিবিআই-এর পুরনো সিট ভেঙে নতুন সিট গঠন করল কলকাতা হাই কোর্ট৷ গত ৭ মাসে ৫৪২ জনের মধ্যে মাত্র ১৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করায় ক্ষুব্ধ আদালত৷ সিবিআই-এর স্পেশ্যাল ইনভেস্টিগেন টিম (সিট)-এর ভূমিকায় অসন্তুষ্ট বিচাপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়৷  এর পরেই সিট-এর দুই অফিসারকে সরিয়ে চারজনকে অন্তর্ভুক্ত করা করেন তিনি৷ 

আরও পড়ুন- সিবিআই তদন্তে উষ্মা প্রকাশ, 'সিট'-এ বদল আনলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়

প্রসঙ্গত,  সন্দীপ প্রসাদ নামে এক চাকরিপ্রার্থীর করা মামলার ভিত্তিতে গত বছর ২২ নভেম্বর কলকাতা হাইকোর্ট গ্রুপ ডি মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয়। মামলাকারীর অভিযোগ ছিল, অর্থের বিনিময়ে চাকরিতে নিয়োগ করা হয়েছে। এই মামলার শুনানিতে উঠে আসে ৫৪২ জন জনের নাম৷  চলতি বছর ১৮ মে কলকাতা হাই কোর্ট নির্দেশ দেয়, গ্রুপ ডি-তে যে ৫৪২ জনের বিরুদ্ধে বেআইন ভাবে চাকরি পাওয়ার  অভিযোগ উঠেছে, তাঁদের দলে দলে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন সিবিআই আধিকারিকরা৷ সেই নির্দেশ দেওয়ার পর ৬মাস অতিক্রান্ত৷ এদিকে, এই নির্দেশ আসার এক মাস পর সিট গঠন করেছিল সিবিআই৷ সেই সিট গঠন হওয়ার পরেও পাঁচ মাস কেটে গিয়েছে৷ এতদিনে মাত্র ১৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হল কেন? কত শতাংশ হল? প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়৷  পাশাপাশি বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় আরও বলেন, ‘সিবিআই খুব আস্তে আস্তে কাজ করছে৷ তারা কেন এমনটা করছে, সেটা তারাই জানে৷’

 

এর জবাবে সিবিআই-এর তরফে বলা হয়, ‘‘আমরা বৃহত্তর চক্রান্তের বিষয়টি দেখছি৷ টাকার উৎস খুঁজছি৷ কাদের কাছে এই টাকা গিয়েছে তা দেখা হচ্ছে৷ আমরা নথি সংগ্রহ করছি৷ যার ভিত্তিতে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হচ্ছে৷’’  সিবিআই-এর এই উত্তরে একেবারেই সন্তুষ্ট হতে পারেনি বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়৷ সেই কারণেই গত ১৭ জুন নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্তে তিনি সিবিআই-এর যে সিট গঠন করেছিলেন, তা ভেঙে নতুন সিট গঠন করেন৷ তিনি সিবিআই-কে চারজন আধিকারিকের নাম দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন৷ যাঁদের তিনি এই টিমে সংযুক্ত করবেন৷ নির্দেশ পেয়েই সিবিআই-এর তরফে চারজন আধিকারিকের নাম দেওয়া হয়৷ ওই চার অফিসারকে সিটে-র অন্তর্ভুক্ত করেন বিচারপতি৷  তাঁরা হলেন, অংশুমান সাহা (ডেপুটি এসপি), বিশ্বনাথ চক্রবর্তী (ইন্সপেক্টর), প্রদীপ ত্রিপাঠি (ইন্সপেক্টর), ওয়াসিম আকরাম খান (ইন্সপেক্টর)।পাশাপাশি আগের সিট থেকে দুই আধিকারিক ইমরান আশিক এবং কেসি রিশিনামোলকে সরিয়ে দেন তিনি৷

বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় আরও বলেন, নতুন সিট এর নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য একজন ডিআইডি পদমর্যাদার আধিকারিকের প্রয়োজন৷ কিন্তু সিবিআই-এর কলকাতার অফিসে এই মুহূর্তে কোনও ডিআইজি পদমর্যাদার অফিসার না থাকায় ভূতপূর্ব ডিআইজি অখিলেশ সিং-কে সাত দিনের মধ্যে কলকাতায় আসার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ তাঁর নেতৃত্বেই কাজ করবে নতুন সিট৷ আদালতের নির্দেশ ছাড়া অখিলেশ সিং-কে অন্যত্র বদলি করা যাবে না বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ 

From around the web

Education

Headlines