Avinash Bauri at indian idol show

কলকাতা: ‘তু না জানে আস পাস হ্যায় খুদা’৷ অবলীলায় গেয়ে যান নুসরত ফতেহ আলি, রাহত ফতেহ আলির এমনই সব জনপ্রিয় গান৷ তার এই গায়কির কাছে হার মেনেছে তার সমস্ত প্রতিবন্ধকতা৷ জন্মগত দৃষ্টিহীন অবিনাশ বাউরি উদাহরণ তৈরি করছেন৷ অসম্ভবকে সম্ভব করার উদাহরণ৷ কারণ প্রতিবন্ধকতার লড়াইয়ে একদিন নিজেকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন এই অবিনাশ৷ বাঁকুড়ার মেজিয়া অর্ধগ্রাম এলাকায় বাড়ি অবিনাশের৷ ছোটোবেলা থেকেই চোখে দেখতে পান না৷

ছোটবেলা থেকেই নানান জটিলতা, বিদ্রূপ সহ্য করে বেড়ে উঠেছিলেন বাবার ভরসায়৷ হঠাৎই তার মনে ভয় জন্মায়৷ বাবা থাকবেনা যখন তখন কে তার হাত ধরে এগিয়ে নিয়ে যাবে জীবনের পথে৷ একরাশ হতাশা গ্রাস করে তাকে৷

এরপরই নিয়ছিলেন সেই চরম সিদ্ধান্ত৷ গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন অবিনাশ৷ সেই ক্ষত এখনও তার শরীর জুড়ে৷ এরপরই শুরু হয় তার এগিয়ে চলার নতুন লড়াই৷ সহজাত প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে গ্রামের বিভিন্ন মঞ্চে গান গাইতে শুরু করেন৷

এমনই এক মঞ্চে তার গান গাওয়ার ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়৷ বাঁকুড়ার মেজিয়া গ্রাম থেকে মুম্বাইয়ের জনপ্রিয় সঙ্গীত প্রতিযোগিতার মঞ্চ তার কাছে সুগম করে দেয়৷ অখ্যাত মেজিয়া গ্রামের নাম তার গানের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পায় দেশের নানান প্রান্তে৷ ইন্ডিয়ান আইডল সিজিন ১১ এর প্রতিযোগী ছিলেন অবিনাশ৷ তাঁর জীবনের লড়াইয়ের গল্প বিচারকদের চোখেও জল এনে দেয়৷ এখন তো নেটিজেনদের কাছেও অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছেন অবিনাশ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here