Anu Dubey

নয়াদিল্লি: দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে খুব সম্ভবত একাই হয়ে ওঠা যায় শতকোটির প্রতিবাদের কণ্ঠ৷ এভাবেই রুখে দাঁড়ানো যায়৷ পুলিশি তাণ্ডের পরও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদও টলিয়ে দিতে পারে শাসকের দূর্গ৷ এতদিন যা ছিল বিপ্লব আনার স্বপ্ন, আজ, রাজধানীর বুকে একাকী তরুণী দেখালেন প্রতিবাদের নয়া বিপ্লব৷ হয়ে উঠলেন শতকোটির প্রতিবাদের কণ্ঠ৷

হায়দরাবাদে চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণের পর জীবন্ত জালিয়ে খুনের ঘটনা দেখে আর চুপ থাকতে পারেননি বছর ২৪-এর কলেজ-ছাত্রী অনু দুবে৷ ধর্ষণের প্রতিবাদে সংসদ ভবনের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে পৌঁছে গিয়েছিলেন অনু৷ রাজপথে বলে প্রতিবাদী তরুণী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তুলেছিলেন বেঁচে থাকার প্রশ্ন৷ প্ল্যাকার্ডে নিজের হাতে লিখে ছিলেন আমার দেশে আমি কেন নিরাপদ নই?

সংসদ ভবনের বাইরে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন? শাসকের বিরুদ্ধে আঙুল তুললেই পাল্টা আক্রমণ করতে ছাড়েনি পুলিশ৷ রাজপথে বসে প্রতিবাদে দেখানো তরুণীকে থানায় তুলে মারধরের অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে৷ রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আঙুল তুলতেই প্রতিবাদী তরুণীকে টেনেহিঁচড়ে রাজপথে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়৷ তবুও থামেননি অনু দুবের প্রতিবাদের কণ্ঠ৷ বরং চিকিৎকার আরে সে জানিয়ে ছিল, তাঁরও আছে নিরাপদে বাঁচার অধিকার৷

সংবাদমাধ্যমের তৎপরতায় সেই খবর দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র প্রতিবাদ জানায় দিল্লি মহিলা কমিশন৷ কেন প্রতিবাদী তরুণীর সঙ্গে এমন আচরণ করা হল? সরাসরি দিল্লি পুলিশকে নোটিস পাঠায় মহিলা কমিশন৷ একদিকে সংবাদমাধ্যম অন্যদিকে কমিশন, জোড়া বিপত্তির জেরে অভিযুক্ত তিন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করে পুলিশ৷

ধর্ষণের প্রতিবাদে অনু যখন প্রতিবাদে সামিল, ঠিক তখন পুলিশ গিয়ে তাঁকে যন্তর মন্তরে প্রতিবাদ জানাতে পরামর্শ দেয়৷ কিন্তু, পুলিশি অসহযোগিতার পরও নিজের অবস্থান থেকে সরে দাঁড়ননি ওই তরুণী৷ পুলিশের নির্দেশ অবাধ্য? তরুণীকে গাড়িতে টেনেহিঁচড়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়৷? সেখানে তাঁকে মারধর করা হয়৷ পরে গোটা বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠতেই ক্ষণ পর প্রতিবাদী তরুণীকে ছেড়ে দেওয়া হয়৷

পুলিশের হেফাজত থেকে মুক্তি পেয়ে অনু সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, আমি সরকারি কর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাই৷ কেন আমরা নিরাপদে থাকতে পারব না? কেন আজ মহিলারা আক্রান্ত হবে? আর কত প্রাণ যাবে? আমি জবাব চাই৷’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here