Village police

কলকাতা: ফের শাসকদলের বিড়ম্বনা বাড়িয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা ভিলেজ পুলিশের৷ দীর্ঘ বঞ্চনা ও স্থায়ীকরণের দাবিতে এবার খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির সামনে অনশনে বসতে চলেছেন ভিলেজ পুলিশদের একাংশ৷

ভিলেজ পুলিশদের এহেন কর্মসূচি ঘিরে রীতিমতো চিন্তায় পড়েছে কলকাতা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ৷ মুখ্যমন্ত্রী বাড়ির সামনে অনশন কর্মসূচি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই ভিলেজ পুলিশ সংগঠনের খোঁজখবর নিতে শুরু করেছে পুলিশ৷ কারা এই আন্দোলনে শামিল হচ্ছেন, তাঁদের তথ্য চেয়ে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷

২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে ভিলেজ পুলিশ বাহিনী তৈরি করেছিলেন৷ এই মুহূর্তে তাঁদের ৩১০ টাকা করে দৈনিক মজুরি দেওয়া হয়৷ আপাতত তাঁদের অস্থায়ী কর্মী হিসেবে দেখানো হচ্ছে৷ বছরে কোনও ছুটির ব্যবস্থা না থাকলেও বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পান ভিলেজ পুলিশদের একাংশ৷ কিন্তু নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার সাত বছরের মাথায় এবার স্থায়ীকরণের দাবিতে ভিলেজ পুলিশদের নয়া কর্মসূচি ঘোষণা ঘিরে তৈরি হয়েছে নয়া জটিলতা৷

ভিলেজ পুলিশের একাংশের অভিযোগ, ৭ বছর হয়ে গেলেও তাঁদের একটি টাকাও বাড়ানো হয়নি৷ অথচ সিভিক ভলেন্টিয়ারদের বেতন বাড়িয়েছে প্রশাসন৷ ভিলেজ পুলিশদের অভিযোগ, তাঁরা চান অন্ততপক্ষে স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মাধ্যমে তাঁদের নিয়োগ করা হোক৷ স্থায়ীকরণ করা হোক৷ কেননা ভিলেজ পুলিশদের একাংশ গ্রাম অঞ্চলের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে থাকে৷ এমনকি গ্রামে কোথায় কী ঘটছে তার খোঁজখবর নেন তাঁরা৷ এমনকী, তল্লাশি অভিযান তাঁদেরকে নিয়ে যাওয়া হয়৷ তাদের দিয়ে সমস্ত কাজ করিয়ে নেওয়া হলেও বেতন বাড়ানো হচ্ছে না বলে দাবি করেছেন তাঁরা৷

স্থায়ীকরণের দাবিতে ইতিমধ্যেই জোরদার প্রচার শুরু করেছেন৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেছেন৷ সমস্ত রকম চেষ্টা বিফলে যাওয়ার পর এবার মুখ্যমন্ত্রী বাড়ির সামনে অবস্থানে বসতে চলেছেন সিভিক পুলিশদের একাংশ৷ গোটা রাজ্যজুড়ে ইতিমধ্যেই ভিলেজ পুলিশদের অন্দরে শুরু হয়েছে জোরদার প্রচার৷
যদিও, ভিলেজ পুলিশদের অনশন কর্মসূচি ঘোষণা করা হলেও পুলিশ আদতে তাদের অনুমতি দেবে কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে৷ কারণ মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির চত্বরে হাই সিকিউরিটি জোনর মধ্যে পড়ে৷ ফলে পুলিশ অনুমতি দেবে না ধরে নিয়ে বিকল্প কর্মসূচির পথে হাঁটতে চলেছে ভিলেজ পুলিশদের একাংশ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here