মাঝেরহাট সেতু দুর্ঘটনার ফাইল ছবি৷

কলকাতা: পূর্ত ও পূর্ত সড়ক বিভাগের অধীন ৫০০টি সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এবার তিনটি উপদেষ্টা সংস্থাকে নিয়োগ করছে নবান্ন৷ ওই তিনটি সংস্থা আগামী তিন মাসের মধ্যে সেতুগুলির রোগ নির্ণয় করে প্রতিষেধক বলে দেবে৷ পূর্ত দপ্তর এর পরিপ্রেক্ষিতে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় সেগুলিকে মেরামতির কাজ শুরু করে বলে নবান্ন সূত্রে খবর৷

সম্প্রতি, শিয়ালদার উড়ালপুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্টে পড়েছে নবান্নে৷ ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, উড়ালপুলে ভারী যান চলাচল অনুপযোগী সেতুর উপর বিটুমিনের একাধিক প্রলেপ দেওয়ায় তা অস্বাভাবিক ভারী হয়ে গিয়েছে৷ একটু ভারী ধরনের যানবাহণ চলাচল করলে যেকোনও সময় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে৷ ওই রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না রাজ্য সরকার৷

পূর্ত মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস সম্প্রতি জানিয়েছেন, মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পর রাজ্যের বিভিন্ন সেতু মেরামতের বিষয়টি অগ্রাধিকার তালিকায় রাখা হয়েছে৷ সেই কাজ দ্রুত শেষ হবে৷ উপদেষ্টা সংস্থার নির্দেশ অনুযায়ী উড়ালপুলের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দেওয়া যাবে ইঞ্জিনিয়ারদের হাতে৷

ফেব্রুয়ারি-মার্চের সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, পূর্ত দপ্তরের অধীনে থাকা ১৭৪৯টি সেতুর মধ্যে ৯৫টির অবস্থা অত্যন্ত বিপদজনক৷ ২৯৮টি সেতু যেকোনও সময়ে ভেঙে পড়তে পারে৷ এছাড়াও ৪৭১টি সেতুর হাল খারাপ৷ পূর্ত দপ্তরের ইঞ্জিনিয়ারদের বক্তব্য, প্রতিটি সেতু সারানো দরকার৷ না হলে যেকোনও সময় ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here