আজ বিকেল: গরু পাচার রুখতে গিয়ে পাচারকারীদের ছোঁড়া বোমায় গুরুতর আহত হলেন এক বিএসএফ জওয়ান। তাঁর নাম আনিসুর রহমান। পাচারকারীরা তাঁর ডান হাত লক্ষ্য করে বোমা ছুঁড়লে সেটি প্রায় উড়ে যায়। ওই রাতেই গুরুতর আহত জওয়ানকে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে সকালেই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। হাসপাতাল থেকে শেষ পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, জওয়ানের ডানহাতটি বাদ দেওয়া হয়েছে। বুধবার মধ্যরাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের বনগাঁ আংড়াইল চেকপোস্টে।

জানা গিয়েছে,  ঝিরিঝির বৃষ্টির মধ্যেই বাংলাদেশে গরু পাচার হতে পারে। এই খবর ছিল আংড়াইল চেকপোস্টের দায়িত্বে তাকে বিএসএফ জওয়ানদের কাছে। তাই প্রতিদিনের থেকেও বেশি সজাগভাবে সীমান্ত প্রহরায় ছিলেন সেনা জওয়ানরা। ঘড়ির কাঁটা তখন রাত ১০ থেকে ১১টার মধ্যে, এই সময় দেখা যায় ১৫জনের একটি দল কাঁটাতার পেরিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করছে। ১০-১৫টি গরুর দলকে বাংলাদেশে পাচারের চেষ্টাই করছিল তারা।তবে বিএসএফ-এর নজর পড়তেই বিপত্তির শুরু। প্রথমেই পাচারকারীদের আটকানোর চেষ্টা করেন উপস্থিত জওয়ান। গরু নিয়ে পালানোর জন্য পাচারকারীরা ঘটনাস্থলে একটি দেশি বোমা ছোঁড়ে। পাল্টা হিসেবে বিএসএফ জওয়ান আনিসুর রহমান শূন্যে গুলি চালান। এই সময় কাছেই ছিল এক পাচারকারী, সে ওই জওয়ানের ডানহাত লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ে। বিকট শব্দে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আনিসুর রহমান। সতীর্থরা ছুটে এল দেখা যায় রক্তে ভাসছে তাঁর ডানহাত। তড়িঘড়ি তাঁকে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে ধোঁয়ার সুযোগে গরুর পাল নিয়ে ততক্ষণে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে চলে গিয়েছে পাচারকারীর দলটি। তবে বোমার আঘাতে পাচারকারীদের অনেকেই আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের আঘাত গুরুতর হলেও সে সুযোগ বুঝে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকেই ধরতে পারেনি বিএসএফ। গোটা ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here