কলকাতা: এনআরএস কাণ্ডে গুরুতর জখম জুনিয়র চিকিত্সক পরিবহ মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের মৃত রোগী মহম্মদ সাহিদের পরিবার৷ এন্টালি থানায় জুনিয়র চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে জোড়া এফআইআর দায়ের হয়েছে৷ রোগী পরিবারকে মারধর ও চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে রোগী মৃত্যুর অভিযোগ তুলে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়া জুনিয়র চিকিত্সক পরিবহের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে অভিযোগ৷

অন্যদিকে, সফল অস্ত্রোপচারের পর পরিবহের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে৷ করটিতে গভীর চোট রয়েছে তাঁর৷ ইন্সস্টিটিউট অফ নিউরো সায়েন্সে ভর্তি রয়েছেন জুনিয়ার চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়৷ পাঁচ চিকিত্সকের দল তাঁর মাথার অস্ত্রোপচার করেছেন৷ এখন পরিবহ স্থিতিশীল৷ কিছুটা হলেও বিপদমুক্ত হতে পেরেছেন পরিবহ৷ তাঁকে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে৷

ঘটনার সূত্রপাত ঘটে সোমবার রাতে৷ জানা গিয়েছে, মহম্মদ সাহিদ নামে ৮৫ বছরের এক বৃদ্ধকে রবিবার ভর্তি করা হয়৷ রোগীর পরিজনদের অভিযোগ, রোগী সোমবার সকাল পর্যন্ত ভালই ছিল৷ কিন্তু বিকেলের পর থেকে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি৷ চিকিৎসকদের ডাকা সত্ত্বেও কেউ আসেননি বলে অভিযোগ৷ সন্ধ্যায় ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়৷ রোগী মৃত্যু পর চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তোলা হয়৷ শুরু হয় ধুন্ধুমার পরিস্থিতি৷ হাসপাতাল চত্বরে রোগীর পরিবারের ছোঁড়া ইটের আঘাতে গুরতর জখম হন দুই জুনিয়ার চিকিৎসক৷ পাল্টা হামলা চালান জুনিয়াররাও৷ পরে পোস্টার লাগিয়ে এনআরএসের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন জুনিয়র ডাক্তারদের একাংশ৷ ধর্নায় বসেছেন৷ অচলাবস্থা তৈরি হয় গোটা বাংলার হাসপাতালে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here