কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি, রাজ্যপালের আর্জির পর আজও স্বাভাবিক হল না স্বাস্থ্য পরিষেবা৷ কর্মবিরতিতে অনড় জুনিয়র ডাক্তাররা৷ আজ সকাল থেকে এসএসকেএম হাসপাতালের জরুরি বিভাগ চালু হলেও বন্ধ আউটডোর৷ এনআরএসেও একই পরিস্থিতি৷ এনআরএসের গেট আগলে আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের বিক্ষোভ৷ রাজ্যের উপর চাপ বাড়িয়ে এবার গণ-ইস্তফা বাংলার চিকিৎসকদের৷

জানা গিয়েছে, এনআরএসে ১০৭ জন চিকিৎসক গণ-ইস্তফা দিয়েছেন৷ গণ-ইস্তফায় স্বাক্ষর চিকিৎসকদের৷ ইতমধ্যেই ইস্তফা দিয়েছেন এনআরএস হাসপাতালের প্রিন্সিপাল ও সুপার৷ এসএসকেএম হাসপাতালেও ২০০ জন চিকিৎসক গণইস্তফাপত্রে স্বাক্ষর করেছেন৷ আরজি কর হাসপাতালে ১০৮ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন৷ ন্যাশেনল মেডিক্যাল কলেজে ৩৫ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন৷ কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ইস্তফা দিয়েছেন ১০ জন সিনিয়র চিকিৎসক৷ উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১৫ জন চিকিৎসকও পদত্যাগ করেছেন৷ বৃহস্পতিবারই সিউড়ি মেডিক্যাল কলেজে ৬৭জন চিকিৎসক ইস্তফা দেন৷ সাগরদত্ত মেডিক্যআল কলেজে ২০ জন চিকিৎসক পদত্যাগ করেছেন৷ এখনও পর্যন্ত বাংলাজুড়ে ৫৬২ জন চিকিৎসর গণইস্তফা দিয়েছেন৷  প্রশাসন সূত্রে খবর, চিকিৎসকদের গণ-ইস্তফা গ্রহণ করা হবে না৷ ইস্তফা দিতে চাইলে প্রয়োজনীয় নিময় নেমে তা করতে হবে, পৃথক পৃথক ভাবে৷

অন্যদিকে, বাঁচার দাবিতে এবার রাজপথে নামলেন বাংলার চিকিৎসকরা৷ এনআরএস থেকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পর্যন্ত মিছিল শুরু হয়েছে৷ চিকিৎসকদের মিছিল হলেও পথে নেমেছেন অভিনেত্রী অপর্ণ সেন থেকে শুরু করে সমাজের বিশিষ্টরা৷ আইনজীবীদের একাংশ পথে নেমেছেন৷ মিছিলের সামনে বড় লেখা লেখা ‘বাঁচতে চাই, বাঁচাতে চাই৷’ এদিন মিছিল থেকে বিচারের দাবি তোলেন চিকিৎসকরা৷ পর্যান্ত নিরাপত্তারও দাবি তোলেন তাঁরা৷ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া ও চিকিৎসকদের সুরক্ষায় মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও দাবি করেন চিকিৎসকদের একাংশ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here