কলকাতা: SSKM হাসপাতালে দাঁড়িয়ে আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দিয়ে কাজে ফেরার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া চূড়ান্ত সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও অব্যাহত চিকিৎক বিদ্রোহ৷ গোটা দেশজুড়ে ইতিমধ্যেই এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদ দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়েছে৷ এবার খোদ তৃণমূলের অন্তরেও ছড়িয়ে পড়েছে এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদ৷ তৃণমূলের ২ সাংসদ থেকে শুরু করে ফিরহাদ কন্যা শাবা জানিয়েছেন তাঁদের প্রতিবাদ৷ প্রতিবাদ জানিয়েছেন কৌশিক-অপর্ণারাও৷

আজ শুক্রবার ফেসবুক পোস্টে এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে কার্যত দলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করলেন অভিনেতা তথা সাংসদ দেব৷ লেখেন, ‘‘যাঁরা আমাদের প্রাণ বাঁচান, তাঁরা কেন বারবার মার খাবেন? তাঁদের সুরক্ষার দায়িত্ব আমাদের৷ আবার তারই সঙ্গে লক্ষ লক্ষ অসুস্থ মানুষ ডাক্তারবাবুদের দিকে তাকিয়ে, আপনারা পাশে না দাঁড়ালে তারা অসহায়। সবার শুভবুদ্ধি ফিরে আসুক, সমস্যার সমাধান চাই।’’

এনআরএসর কাণ্ডের প্রতিবাদে আজ জুনিয়ার চিকিৎসকদের পাশে দাঁড়ান কৌশিক সেন থেকে শুরু করে অপর্ণা সেনা৷ চিকিৎসকদেক আন্দোলনকে সমর্থন বুদ্ধিজীবীদের একাংশের৷ আজ দুপুরে এনআরএসে গিয়ে চিকিৎসক পাশে দাঁড়ি রাজ্যের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করেন কৌশিক-অপর্ণা৷

এদিন কৌশিক সেন বলেন, ‘‘আজ দেখছি, খেলা মেলার জন্য টাকা দেওয়া হচ্ছে৷ ক্লাবকে টাকা দেওয়ার টাকা আছে, কিন্তু, স্বাস্ব্য খাতে কেন বরাদ্দ হচ্ছে না? কেন তাঁদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে না৷’’ অপর্ণা সেন বলেন, ‘‘আমার একটাই অনুরোধ, মুখ্যমন্ত্রী আপনি এনআরএসে এসে এদের সঙ্গে কথা বলুন৷ এতে সমস্যাটা কোথায়? আপনিতো এঁদের অভিভাবক৷ সমস্যা সমাধান না করে হুঁমকি দেওয়াটা কি হচ্ছে? এরা যদি রাজ্য ছেড়ে চলে যান, তাহলে কি ভাল হবে?’’

এনআরএসকাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়েছে তৃণমূল নেতাদের নিষ্ক্রিয়তা ও নীরবতায় লজ্জিত হওয়ার মন্তব্যও করেছেন  ফিরহাদ হাকিমের মেয়ে ডঃ শাবা হাকিম৷ মুখ্যমন্ত্রীর স্নেহধন্য ফিরহাদ হাকিমের কন্যা পেশায় চিকিৎসক৷ শাবা নিজের ফেসবুক পেজে জুনিয়র ডাক্তারদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়ে লম্বা পোস্ট লেখেন৷

বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী এসএসকেমে গিয়ে হুঁশিয়ারি দেন, আন্দোলন না তুললে হোস্টেল ছাড়তে হবে জুনিয়র চিকিৎসকদের৷ এর পরে নিজের ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন শাবা৷ লেখেন, ‘‘যদি তোমরা কেউ নিজেকে নিরাপদ নয় বোঝো, তাহলে কেপিসি-তে চলে এস৷’’

ইতিমধ্যেই এনআরএসে জুনিয়র ডাক্তারদের পাশে দাঁড়িয়ে বিবৃতি দিয়েছে আইএমএ৷ শুক্রবার দেশজুড়ে কালো ব্যাজ পড়ে প্রতিবাদ জানাবেন ডাক্তাররা৷ আইএমএর এই সংক্রান্ত বিবৃতিতে সই করেছেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ শান্তনু সেনের৷

অন্যদিকে, এনআরএস-কাণ্ডে সোশাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন ফিরহাদ হামিকের মেয়ে শাবা হাকিম৷ তৃণমূল সমর্থক হিসেবে নেতাদের নিষ্ক্রিয়তা ও নীরবতায় তিনি লজ্জিত বলে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন মেয়ক কন্যা৷

Shabba Hakimফিরহাদ হামিকের মেয়ে শাবা হাকিম লেখেন, ‘‘এই লেখা তাঁদের জন্য যাঁরা জানেন না, সরকারি ও অধিকাংশ বেসরকারি হাসপাতালের আউটডোর যে সমস্ত চিকিৎসকারা বয়কট করেছেন, তাঁরা জরুরি বিভাগে কাজ করে যাচ্ছেন৷ অন্য পেশার মতো আমরা কাজ না করার সিদ্ধান্ত নিতে পারি না, কারণ আমাদের মনুষ্যত্ব রয়েছে৷ বনধের দিন যত কঠিন পরিস্থিতিই হোক না কেন একজন বাস অথবা ট্যাক্সিচালক কিন্তু, অনায়াসে বলেন, তিনি যাবেন না৷ যাঁরা এখনও প্রশ্ন করছেন, অন্য রোগীরা কী দোষ করেছে? তাঁদের বলি সরকারকে প্রশ্ন করুন কেন সরকারি হাসপাতালের নিরারপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ অফিসাররা চিকিৎসকদের জন্য কিছু করেন না? যখন ২ ট্রাকভর্তি গুন্ডারা এসে চড়াও হল, তখন কেন অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়নি? প্রশ্ন করুন, এখনও কী করে হাসপাতালের চারপাশে গুন্ডারা ঘুরছে বেড়াচ্ছে, চিকিৎসকদের মারধর করছে? আমাদের শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করার অধিকার রয়েছে৷ আমাদের কর্মস্থলে নিরাপত্তা দাবি করার অধিকার রয়েছে৷ একজন তৃণমূল সমর্থক হিসাবে আমি দলীয় নেতাদের নিষ্কিয়তা ও নীরবতায় গভীরভাবে লজ্জিত৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here