আজ বিকেল: শিশুকে বিমানে ঘোড়ানোর নাম করে লাগাতার ধর্ষণ। পাঁচ মাসের মাথায়  কারাদণ্ডের শাস্তি পেল মার্কিন ধন কুবের। ধৃতের নাম  স্টিফেন ব্রাডলি মেল। নিউজার্সির এক আদালত তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করল।

জানা গিয়েছে, বিমানটি মাঝ আকাশে পৌঁছাতেই কাম রিপুতে কাতর হয়ে পড়েন নিউজার্সির বেডমিনিস্টারের এই বাসিন্দা। তৎক্ষণাৎ বিমানটিকে অটো পাইলট মোডে দিয়ে সেখানেই যৌন ক্রিয়ায়(Minor raped) লিপ্ত হন। দীর্ঘক্ষণ সঙ্গমের পর তাঁর হুঁশ, ফেরে ততক্ষণে নিকটবর্তী এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের নজরে এসেছে বিষয়টি। পরে বিমান সমেত মেল রানওয়েতে অবতরণ করলেই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। ততক্ষণে নির্যাতিতা নাবালিকাকে দেখতে পান প্রত্যক্ষদর্শীরা। বিষয়টি বুঝে নিতে বিশেষ সময় লাগেনি। নির্যাতিতার মায়ের তরফে ব্রাডলি মেলের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়। পাঁচ মাসের মাথায় সেই অপরাধের সাজা পাচ্ছেন ওই কোটিপতি। তাঁকে পাঁচ বছরের কারাবাসের মেয়াদ শুনিয়েছেন বিচারক।

ব্রোকারেজ ফার্মের মালিক ব্রাডলি তিন সন্তানের বাবা। তিনি নানারকম জনকল্যাণকর কাজেও যুক্ত।দরিদ্র পরিবারের শিশুদের বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দিতে চালু করেছে নিজের চ্যারিটি ফার্ম এয়ার লাইফ লাইন। শিশু থেকে কিশোর কিশোরী পর্যন্ত যেকোনও বাচ্চাকেই ওই বিমানে চড়িয়ে ঘোরানো হয়। সঙ্গে থাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরিষেবার ব্যবস্থা। যাতে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়তে তড়িঘড়ি পরিষেবার ব্যবস্থা নেওয়া যায়। এদিন ব্রাডলির আইনজীবী বারবার মক্কেলের এহেন দানশীল মনোভাবের বিবরণ দিয়ে শাস্তি কমানোর চেষ্টায় কোনওরকম ত্রুটি রাখেননি। তবে সেসব আবেদন নিবেদনে গ্রাহ্য করেননি বিচারক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here