ওয়াশিংটন: চাঁদের মাটিতে জলের অস্তিত্ব আরও একবার জোরালো করলেন নাসার বিজ্ঞানীরা। সম্প্রতি, জিওফিজিক্যাল রিসার্চ লেটার জার্নালে প্রকাশিত ওই গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, মহাকাশ গবেষকরা নাসার লুনার রিকনাসেন্স অর্বিটরকে (এসআরও) ব্যবহার করে চাঁদের ‘ডেসাইড’ অংশে (যে অংশটি পৃথিবী থেকে দেখা যায়) জলের অণুর সন্ধান পেয়েছেন। এলআরও-তে থাকা অত্যাধুনিক ‘লাইম্যান আলফা ম্যাপিং প্রজেক্ট’ বা সংক্ষেপে ‘ল্যাম্প’ প্রযুক্তির সাহায্যেই এটা সম্ভব হয়েছে।

খুব শীঘ্রই চাঁদে মানুষ পাঠানোর তোড়জোড় করছে নাসা। তার আগে নতুন এই আবিষ্কার মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থাকে যে বাড়তি অক্সিজেন জোগাবে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। নাসা জানিয়েছে, তাদের ভবিষ্যতের চন্দ্রাভিযানগুলিতে বিশেষভাবে সাহায্য করবে নতুন এই আবিষ্কার। আগামী দিনে চাঁদের এই জল মহাকাশচারীরা কাজে লাগাতে পারেন কি না, তা নিয়েও একাধিক সম্ভাবনার দরজা খুলে দিয়েছে এই আবিষ্কার। গত দশক পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা চাঁদকে একেবারে নিরস ও শুষ্ক বলেই মনে করতেন।

Loading...
Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here