নয়াদিল্লি: ইসরো-র কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট সম্ভারে নয়া সংযোজন। মহাকাশে সফল পাড়ি ইসরোর ৪০তম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট ‘Gsat-31’। ১৫ বছরের ক্ষমতাসম্পন্ন ২৫৩৬ কেজি ওজনের এই নয়া ইসরো স্যাটেলাইট। যা ভারতীয় মৃতপ্রায় কমিউনিকেশন কৃত্রিম উপগ্রহ ‘Insat-4CR’র পরিবর্তে কাজ করবে।

ইসরো-র কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট ‘Gsat-31’র সফল উৎক্ষেপণ-১

‘Gsat-31’ উৎক্ষেপণঃ

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই ‘Gsat-31’ ফ্রেঞ্চ গিয়ানা থেকে মঙ্গলবার মধ্যরাতে মহাকাশে পাড়ি দেয়। যাত্রা শুরুর ৪২ মিনিট পর ভারতীয় সময় রাত ২টে ৩১ মিনিটে ইসরোর ‘Gsat-31’কে কক্ষপথে সফল স্থাপন করে আরিয়ানস্পেসের রকেট ‘Arian-5’।

আধিকারিকদের মতঃ

ইসরোর সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টারের ডিরেক্টর এস পান্ডিয়ান জানিয়েছেন, কক্ষপথে সফল অবতীর্ণ ঘটেছে ‘Gsat-31’র। ইসরোর এই সফলতার ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থায় আরও উন্নতিসাধন ঘটবে ভারতে।

তিনি আরও জানান, চলতি বছরের জুন বা জুলাই মাসে ইসরোর অপর কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট ‘Gsat-30’কে পাঠাতে চলেছে আরিয়ানস্পেস। পূর্বে ‘Gsat-31’ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইটি ‘GSLV MK-3’-এর মাধ্যমে মহাকাশে উৎক্ষেপণের কথা ছিল ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশনের। কিন্তু ‘Chandrayan-2’র জন্য সেই রকেটটি বরাদ্দ থাকায় ইউরোপের আরিয়ানস্পেসের সাহায্য নেয় ইসরো।

ইউরোপিয় সংস্থার আধিকারিকের মতঃ

এই সফল উৎক্ষেপণ প্রসঙ্গে ইউরোপের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের এক শীর্ষ আধিকারিক জানান, ১৯৮১ সাল থেকে ফ্রেঞ্চ স্যাটেলাইট লঞ্চ কোম্পনি আরিয়ানস্পেসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধভাবে কাজ করছে তারা। এই কোম্পানির ‘Arian L03’ রকেটে চড়েই মহাশূন্যে পাড়ি দিয়েছিল ভারতের পরীক্ষামূলক অত্যাধুনিক কৃত্রিম উপগ্রহ ‘APPLE’।

ইসরো -র পূর্ব উৎক্ষেপণঃ

প্রায় দু’দশক ধরে দূরদর্শন, আবহাওয়া সহ দেশের যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমের জন্য কাজ করে চলেছে ইসরোর ‘Insat’ সিরিজের স্যাটেলাইটগুলি। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ক্রমশ মুমূর্শ হয়ে পড়েছে উপগ্রগুলি। সেকারণে ২০১৮ সালে মহাকাশে পাঠানো হয় ইসরোর শক্তিশালী ‘বিগ বার্ড’ তথা ‘Gsat-11’কে। যার ওজন ৫৮৫৪ কেজি।

Loading...
Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here