ERVIS

নয়াদিল্লি: বর্জ্য জমছে সমুদ্রে বাড়ছে দূষণের মাত্রা৷ সমুদ্রে বিপজ্জনক ভাবে বেড়ে চলা দূষক কমাতে নয়া সূত্র নিয়ে হাজির বছর ১২-র কিশোর৷ গ্লোবাল অর্গানাইজেশন টেডএক্স ও টেড৮-এর ইভেন্টে এই কিশোরের বুদ্ধি ও নতুন আবিষ্কারের নমুনা দেখে তাজ্জব বনে গেলেন গবেষকরা৷

হাজিক কাজি৷ পুণের বাসিন্দা৷ সমুদ্রে প্লাস্টিক দূষণ রুখতে হাজিক বানিয়েছে একটি জাহাজের নকশা৷ এমন জাহাজ যা একাধারে সমুদ্রে জমা বর্জ্য ছেঁকে নেবে, অন্যদিকে জল দূষণমুক্ত করে প্রাণ বাঁচাবে সামুদ্রিক প্রাণীদের৷ এমন জাহাজের নাম দিয়েছে ‘এরভিস’৷ বিশেষ সেন্সর লাগানো ‘এরভিস’-এর নকশা একদম তৈরি৷ কাজও করবে একদম নিয়ম মেনে৷ বিজ্ঞানীদের এমনটাই জানিয়েছে কাজি৷

তার কথায়, ‘‘ইন্টারনেটে সামুদ্রিক দূষণের উপর নানা ডকুমেন্টারি দেখেই আমি এমন একটা জাহাজ বানানোর কথা ভাবি৷ সমুদ্রের প্রাণ বড়ই সঙ্কটে, তাদের বাঁচাতে হবে৷ সমুদ্রে জমা প্লাস্টিক ও বর্জ্য খাচ্ছে মাছ, সেই মাছ আবার আমরা খাচ্ছি৷ আমাদের তৈরি দূষণ এ ভাবেই ফিরে আসছে আমাদের কাছে৷’’

কী ভাবে কাজ করবে ‘এরভিস’? কাজি জানিয়েছে, এই জাহাজে লাগানো থাকবে বিশেষ কয়েকটি সেন্সর। তার একটি খুঁজে খুঁজে বর্জ্য সমেত জলকে শুষে নেবে। অন্য সেন্সর সেই দূষিত জল থেকে আবর্জনা ও সামুদ্রিক প্রাণীদের আলাদা করবে। এর পর চলবে জল শোধনের পালা। প্লাস্টিক ও অন্যান্য আবর্জনাকে পাঁচটা স্তরে ভাগ করা হবে, সেগুলি জৈব সার তৈরির কাজে লাগবে। অন্যদিকে ছেঁকে নেওয়া শোধিত জল ও সামুদ্রিক প্রাণীদের ফের ছেড়ে দেওয়া হবে তাদের এলাকায়৷

Loading...
Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here