শিক্ষক দিবসে জাতীয় সম্মানের প্রতিই বেশি ঝোঁক শিক্ষকদের। রাজ্যের শিক্ষারত্ন এবং কেন্দ্রের জাতীয় সম্মানের জন্য আবেদনের সংখ্যা থেকে অন্তত এমনই ছবি উঠে এসেছে। শিক্ষাদপ্তর সূত্রে খবর, রাজ্যের শিক্ষারত্নের জন্য আবেদন পড়েছে ৪৩১টি। অথচ, কেন্দ্রের জাতীয় শিক্ষক পুরস্কারের জন্য আবেদন পড়েছিল ৭৭০টি। তার মধ্যে থেকে ছ’জনকে বাছাই করে কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হয়েছে। এই সংখ্যা নিয়ে অবশ্য শিক্ষাদপ্তরের কর্তা-আধিকারিকদের মধ্যে ভিন্ন মত উঠে এসেছে।
দপ্তরের কেউ কেউ বলছেন, জাতীয় সম্মান পাওয়া একটা আলাদা ব্যাপার। সেখানে দেশের বাছাই করা শিক্ষকদের মধ্যে থেকে নেওয়া সেই সম্মান একটি অন্য মাত্রা যোগ করে। তারচেয়েও বড় কথা, রাষ্ট্রপতির হাত থেকে সেই পুরস্কার পাওয়ার সুযোগ থাকবে। আবার আরেকটি অংশের বক্তব্য, কেন্দ্র এবার মাত্র ছ’জনের আবেদন চেয়েছে। তার মধ্যে ক’জনকে সম্মান জানাবে, তা কেউ জানে না। এদিকে, রাজ্যে শিক্ষারত্ন দেওয়া হবে ৪০জনকে। সেক্ষেত্রে সম্মান পাওয়ার হার কিছুটা বেশি বটেই। কারণ যাই হোক না কেন, এটাই যে বাস্তব, সেটাও মনে করিয়ে দিচ্ছেন কর্তারা। এদিকে, শিক্ষারত্নের জন্য যে ৪৩১টি আবেদন পড়েছে, সেগুলি সবকটাই স্কুলের শিক্ষকরা করেছেন। উচ্চশিক্ষা দপ্তর অবশ্য কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদন আলাদা করে নিচ্ছে। স্কুল শিক্ষকদের জমা পড়া আবেদনগুলির মধ্যে থেকে আরও এক দফা ঝাড়াই-বাছাই করা হবে বলে জানা গিয়েছে। যে কমিটি তৈরি করা হয়েছে, তাদের কাছে এই আবেদনগুলি পেশ করা হবে।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here